BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পাকিস্তানের ২ সেনা কর্মীকে মারধরের পর বাথরুমে আটকে রাখল চিনের শ্রমিকরা

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: August 11, 2020 2:23 pm|    Updated: August 11, 2020 2:25 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তানকে মদত দিলেও বেজিংয়ে চোখে ইসলামাবাদের মূল্য যে কতটা তা সময় এলেই প্রমাণ হয়! আর সেটা বোঝে বলেই ইমরান খান কাশ্মীর নিয়ে এত চেঁচামেচি করলেও উইঘুর মুসলিমদের উপরে চিনের প্রশাসনের অত্যাচার দেখেও চুপ থাকে। এবার নিজের দেশের দুই সেনাকর্মীকে চিনের শ্রমিকরা বেধড়ক মারধর করার পরও সেই একই পথ অবলম্বন করল। ঘটনাটি ঘটেছে চিন পাকিস্তান ইকোনমিক করিডর (CPEC) প্রকল্প এলাকায়।

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী জানা গিয়েছে, বালুচিস্তানের একটি জায়গায় সিপিইসি করিডর তৈরির কাজে কর্মরত চিন ও পাকিস্তানের শ্রমিকদের নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব রয়েছে পাকিস্তানের সেনা (Pakistan Army) -এর হাতে। গত ২১ জুলাই একটি বিষয় নিয়ে চিনের কয়েকজন শ্রমিকের সঙ্গে পাকিস্তান সেনা বাহিনীর হাবিলদার আসদুল্লা ও সিপাহী ফজল উর রহমানের ঝামেলা লাগে। কিছুক্ষণ বাদে পাকিস্তানি ওই দুই সেনাকর্মীকে বেধড়ক মারধর করে চিনের শ্রমিকরা একটি বাথরুমে আটকে বলে অভিযোগ।

[আরও পড়ুন: তাইওয়ান সফরে মার্কিন আধিকারিক, শক্তি প্রদর্শনে যুদ্ধবিমান পাঠাল চিন ]

খবর পেয়ে ওই দু’জনের সহকর্মীরা তাঁদের উদ্ধার করে নিয়ে এসে ওই এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত পাকিস্তানি সেনা কমান্ডার মেজর শেহজাদকে বিষয়টি জানান। কিন্তু, তিনি চিনের শ্রমিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার বদলে ঘটনাটি চেপে যাওয়ার পরামর্শ দেন। এর ফলে ওই এলাকায় কর্তব্যরত পাকিস্তানি সেনাকর্মীরা হীনমন্যতায় ভুগছেন। সবকিছু জানা সত্ত্বেও উচ্চপদস্থ সেনাকর্তার ওই করিডর তৈরির দায়িত্বপ্রাপ্ত কোম্পানির কাছ থেকে টাকা নিয়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে চাইছেন বলেই তাঁদের অভিযোগ। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞদের কেউ কেউ আবার বলছেন, বেজিংয়ের সুনজরে থাকতেই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেয়নি ইমরানের প্রশাসন।

[আরও পড়ুন: বেইরুটে বিস্ফোরণের পরেই উত্তাল লেবানন, গণআন্দোলনের চাপে ইস্তফা গোটা মন্ত্রিসভার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement