১৩ কার্তিক  ১৪২৭  শুক্রবার ৩০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

‘ঠান্ডা, গরম কোনও লড়াই চাই না’, রাষ্ট্রসংঘে ভারতকে পরোক্ষে বার্তা জিনপিংয়ের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: September 22, 2020 9:08 pm|    Updated: September 22, 2020 9:08 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লাদাখে লালফৌজের আগ্রাসনের জেরে যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে চিন ও ভারতের মধ্যে। তবে আন্তর্জাতিক চাপ ও নয়াদিল্লির কড়া সামরিক জবাবে সুর নরম করতে বাধ্য হয়েছে ‘ড্রাগন’। মঙ্গলবার ভারতকে পরোক্ষে বার্তা দিয়ে রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভায় চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং জানান, তাঁর দেশ কোনও ধরনের যুদ্ধে আগ্রহী নয়। সবার সঙ্গে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান চায় বেজিং।

[আরও পড়ুন: করোনার সঙ্গে ফ্লু, শীতের আগে ‘টুইনডেমিক’ উপসর্গ নিয়ে উদ্বিগ্ন চিকিৎসকরা]

সদ্য ৭৫তম প্রতিষ্ঠা দিবস পালন করেছে রাষ্ট্রসংঘ। বর্তমানে ওই আন্তর্জাতিক সংগঠনের সাধারণ সভা চলছে। সেখানে বক্তব্য রাখবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পূতিন। সেপ্টেম্বরের ২২ তারিখ বা আজ সাধারণ সভায় জিনপিং বলেন, “ঠান্ডা বা গরম, কোনও লড়াই আমরা লড়তে চাই না। বিশ্বের সবচেয়ে বড় উন্নয়নশীল দেশ হচ্ছে চিন। আমরা কখনওই সম্প্রসারণবাদ বা আধিপত্য বিস্তার করতে চাই না।” ইঙ্গিতে সোভিয়েত যুগের কথা স্মরণ করিয়ে ও আমেরিকাকে পরোক্ষে বার্তা দিয়ে তিনি আরও বলেন, “আমরা ঠান্ডা লড়াই চাই না। অন্য দেশগুলির সঙ্গে বিবাদ আলোচনার মাধ্যমে মেটানোর পক্ষেই আমাদের মত রয়েছে।”

উল্লেখ্য, দক্ষিণ চিন সাগর নিয়ে আমেরিকার সঙ্গে ক্রমেই সংঘাতের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে চিন। অনেকেই মনে করছেন, অধুনা লুপ্ত সোভিয়েত ইউনিয়নের জায়গা দখল করে আমেরিকার সঙ্গে ঠান্ডা লড়াইয়ে নেমেছে বেজিং। একইভাবে লাদাখ সীমান্তে আগ্রাসন চালিয়ে ভারতের জমি দখল করার চেষ্টা করছে জিনপিং সরকার। এক্ষেত্রে গালওয়ান উপত্যকায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়েছে দুই দেশ। এদিকে, লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা প্রশমনে গতকাল মলডোয় কোর কমান্ডার স্তরের সামরিক বৈঠক হয় দুই দেশের মধ্যে। সেই বিষয়ে আজ একটি যৌথবিবৃতি দেওয়ার কথা রয়েছে নয়াদিল্লি ও বেজিংয়ের।

[আরও পড়ুন: সফল চিনের উইঘুর মুসলিমদের নির্মূল করার ছক! বন্ধ্যাত্বকরণের ফলে কমছে জন্মহার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement