BREAKING NEWS

২৮ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

চিনকে ধাক্কা দিয়ে এবার দলাই লামাকে ‘স্বাগত’ জানাল তাইওয়ান

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: July 6, 2020 5:46 pm|    Updated: July 6, 2020 6:28 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অতি আগ্রাসী মনোভাবের জন্য বিশ্বমঞ্চে একঘরে হয়ে পড়েছে চিন (China)। এবার বেজিংয়ের উপর আরও চাপ বাড়িয়ে বৌদ্ধ ধর্মগুরু দলাই লামাকে ‘স্বাগত’ জানাল তাইওয়ান। ‘ওয়ান চায়না’ নীতির অন্তর্গত তাইওয়ানকে নিজেদের অংশ বলেই দাবি করে এসেছে চিন। এহেন পরিস্থিতিতে দলাইকে আমন্ত্রণ জানিয়ে তাইপেই সাফ বুঝিয়ে দিয়েছে যে চিনা হুমকির সামনে মাথা নত করবে না দেশটি।

[আরও পড়ুন: সাঁড়াশি চাপে বেজিং, দক্ষিণ চিন সাগরে আণবিক রণতরী পাঠাল আমেরিকা]

১৯৫৯ সালে চিনা হানাদার বাহিনীর হাত থেকে বাঁচতে তিব্বত থেকে দলবল সমেত পালিয়ে ভারতে আশ্রয় নিয়েছিলেন দলাই লামা (Dalai Lama)। তারপর থেকেই তাঁকে বিচ্ছিন্নতাবাদী বলে মনে করে বেজিং। এনিয়ে ভারতের সঙ্গেও সংঘাতে জড়িয়েছে কমিউনিস্ট দেশটি। ফলে দলাইয়ের জন্য তাইওয়ানের লাল গালিচা বিছিয়ে দেওয়া যে ভাল চোখে দেখছে না চিন, তা বলাই বাহুল্য। কিন্তু এনিয়ে বিশেষ মাথা ব্যথা নেই গণতান্ত্রিক দ্বীপটির। বিশেষ করে ২০১৬ সালে মহিলা প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েন ক্ষমতায় বসার পর থেকেই চিনা হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে তাইওয়ান। এবার সংঘাত আরও বাড়িয়ে তাইওয়ানের (Taiwan) বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র জোয়ানে ওউ জানিয়েছিলেন, এখনও দলাই লামার তরফে সরকারি ভাবে কোনও আবেদন তাঁরা পাননি৷ কিন্তু দলাই লামা তাইওয়ানে আসার আবেদন জানালে নিয়ম অনুযায়ী পদক্ষেপ করা হবে৷ তিনি বলেন, “পারস্পরিক সম্মান এবং সম্মতির ভিত্তিতে বৌদ্ধ ধর্মের প্রচারে তাঁরা দলাই লামাকে তাইওয়ানে স্বাগত জানাতে ইচ্ছুক৷”

উল্লেখ্য, ৬ জুলাই নিজের জন্মদিন উপলক্ষে তাইওয়ান ভ্রমণের ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন দলাই লামা। তারই জবাবে তাঁকে স্বাগত জানিয়ে বিবৃতি দেয় তাইওয়ান। এদিকে, বেজিংয়ের মতে, তাইওয়ানের বর্তমান প্রেসিডেন্ট স্বশাসিত এই দ্বীপটিকে পূর্ণ স্বাধীনতা পাইয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন৷ তাইওয়ানের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অবশ্য নিজেদের একটি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবেই দাবি করেছেন৷ তাঁর দাবি, গণপ্রজাতান্ত্রিক চিন নামে তাঁদের দেশের নাম নথিভুক্ত রয়েছে৷ সব মিলিয়ে দলাই যদি তাইওয়ান যান সেক্ষেত্রে বেজিংয়ের পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে তা নিয়ে জোর আলোচনা চলছে কূটনৈতিক মহলে।

[আরও পড়ুন: প্রকৃতির মার! গালওয়ান নদীতে বন্যার আশঙ্কায় সীমান্ত থেকে পিছনোর পথে চিনা সেনা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement