২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

আজারবাইজান-আর্মেনিয়ার মধ্যে শুরু তুমুল যুদ্ধ, গোলাবর্ষণে নিহত অন্তত ১৬

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: September 28, 2020 1:30 pm|    Updated: October 1, 2020 2:18 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের আগুন জ্বলে উঠেছে আজারবাইজান-আর্মেনিয়া সীমান্তে। বিতর্কিত নাগর্নো-কারাবাখ অঞ্চলে ফের সম্মুখ সমরে অবতীর্ণ হয়েছে দুই পড়শি দেশ। সংঘাতে এপর্যন্ত দু’পক্ষের ১৬ জন জওয়ান নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: ব্যবসায় লাভই হচ্ছে না! অজুহাতে এক দশক ধরে কর ফাঁকি দিয়েছেন ট্রাম্প, রিপোর্টে ফাঁস]

লড়াইয়ে ১৬ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন নাগর্নো-কারাবাখ সেনাবাহিনীর উপপ্রধান আর্তুর সারকিসিয়ান৷ আহত হয়েছেন শতাধিক৷ তবে হতাহতের মধ্যে কোন দেশের কতজন জওয়ান রয়েছেন তা পরিস্কার নয়৷ উল্লেখ্য, নাগর্নো-কারাবাখ অঞ্চলটি আজারবেইজানের ভৌগলিক সীমানার মধ্যে হলেও সেটির দখল রয়েছে আর্মেনিয়ান বিরোধীদের হাতে। অভিযোগ, আজারবাইজানের সরকারি বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই চালাতে ওই বিদ্রোহীদের মদত দিচ্ছে আর্মেনিয়া (Armenia)। রবিবার আজারবাইজানের চারটি সামরিক হেলিকপ্টার গুলি করে নামিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি ১০টি ট্যাংক ও ১৫ টি ড্রোনে আঘাত হানা হয়েছে বলে দাবি করেছে আর্মেনিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷ এর আগে আজারবাইজান সেখানে নিরীহ নাগরিকদের উপরে বোমাবর্ষণ করেছে বলেও উল্লেখ করা হয়৷ মন্ত্রকের মুখপাত্র বলেছেন, ‘‘গোটা ঘটনার দায় আজারবাইজানের ( Azerbaijan ) সামরিক-রাজনৈতিক সরকারের উপর বর্তায়৷”

অন্যদিকে, আজারবাইজানের পালটা দাবি, আর্মেনিয়া নাগর্নো-কারাবাখ এ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে হামলা চালিয়েছে আর্মেনিয়া৷ এতে নিরীহ নাগরিক এবং সামরিক বাহিনীর সদস্য হতাহত হয়েছেন বলে উল্লেখ করেন দেশটির প্রেসিডেন্ট৷ নিজেদের হেলিকপ্টার ধ্বংস হওয়া ও ট্যাংকে আর্মেনিয়ার আঘাত হানার দাবি উড়িয়ে দিয়েছে আজারবাইজানের প্রতিরক্ষামন্ত্রক৷ অঞ্চলটির বেশ কয়েকটি গ্রাম নিজেরা নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে বলেও দাবি করেছে আজারবাইজান৷ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র এএফপিকে বলেন, “আমরা ছয়টি গ্রাম মুক্ত করেছি৷ এর মধ্যে পাঁচটি ফিজুলি জেলায় আর একটি জেবরাইলে৷”

এদিকে, দু’দেশের লড়াইয়ে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে নাগর্নো-কারাবাখ এর স্টেপানাকেয়ার্ট শহর৷ সেখানকার বাসিন্দাদের নিরাপদে থাকতে বলেছে শহর কর্তৃপক্ষ৷ বেশ কয়েকটি গ্রাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, আহত হয়েছেন অনেকে৷ গোটা অঞ্চলটিতে সামরিক আইন জারি করার নির্দেশ দিয়েছেন কারাবাখ এর প্রেসিডেন্ট আরাইক হারুতিউনিয়ান৷ দেশজুড়ে সামরিক আইন জারি করেছেন আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোলপাশেনিয়ানও৷

[আরও পড়ুন: টিকটক নিয়ে বড় ধাক্কা ট্রাম্পের, অ্যাপ ডাউনলোডে তাঁর নিষেধাজ্ঞায় স্থগিতাদেশ আদালতের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement