১৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘৬০ লক্ষ মানুষের প্রাণ বাঁচাতে কাবুল ছাড়ি’, আফগানদের কাছে ক্ষমা চেয়ে সাফাই আশরফ ঘানির

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: September 9, 2021 10:21 am|    Updated: September 9, 2021 10:21 am

Former Afghan Prez Ashraf Ghani apologizes to Afghan people | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কাবুলের দোরগোড়ায় তালিবান যোদ্ধারা আসতেই দেশ ছেড়ে পালিয়েছিলেন আশরফ ঘানি (Ashraf Ghani)। তারপর থেকেই দেশবাসীকে বিপদের মুখে ফেলে চলে যাওয়ার জন্য তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন আফগানিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট। এবার জনগণের কাছে ক্ষমা চেয়ে আত্মপক্ষ সমর্থন করলেন ঘানি। তাঁর দাবি, সংঘর্ষ এড়াতে ও কাবুলের মানুষের প্রাণ বাঁচাতেই তিনি দেশ ছেড়েছিলেন।

[আরও পড়ুন: Taliban Terror: ঘানিকে তালিবানের অগ্রগতি চেপে যেতে বলেছিলেন বাইডেন! ফাঁস গোপন ফোনালাপ]

১৫ আগস্ট কাবুল দখল করে তালিবান। সেই দিনই হেলিকপ্টারে দেশ ছাড়েন ঘানি। বর্তমানে সংযুক্ত আরব অমিরশাহীতে রয়েছেন তিনি। সেখান থেকেই আফগান জনতার প্রতি এক বার্তায় তিনি বলেন, “বন্দুকগুলিকে শান্ত রাখতে ও কাবুলের ৬০ লক্ষ মানুষের প্রাণ বাঁচানোর জন্যই আমি ১৫ আগস্ট দেশ ছেড়েছিলাম। আমি জানি এর জন্য আমাকে আফগানিস্তানের জনতার কাছে জবাবদিহি করতে হবে। আমার নিরাপত্তা উপদেষ্টা বলেছিলেন আমি থাকলে কাবুলে প্রচণ্ড লড়াই হবে। সেই ১৯৯০ সালের গৃহযুদ্ধের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়ে অনেক রক্ত ঝড়বে।” দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চেয়ে প্রাক্তন আফগান প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, “কাবুল ত্যাগ করা আমার জীবনের সবচেয়ে কঠিন সিদ্ধান্ত ছিল। তবে আমার মনে হয়েছিল কাবুলের ৬০ লক্ষ মানুষের প্রাণ বাঁচানোর একমাত্র উপায় এটাই।”

বলে রাখা ভাল, ২০১৪ থেকে ২০২১ সালের ১৫ আগস্ট পর্যন্ত আফগানিস্তানের (Afghanistan) প্রেসিডেন্ট পদে ছিলেন আশরফ ঘানি। মার্কিন ও পশ্চিমের মদতপুষ্ট ঘানি সরকারের আমলে আফগানিস্তানে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা হয় দেশজুড়ে। যদিও ওই সরকারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির পাহাড়প্রমাণ অভিযোগ রয়েছে। আর তালিবানের হাতে আফগান সেনাবাহিনীর হারের কারণও এই দুর্নীতি বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকদের অধিকাংশ। এহেন সময়ে ঘানি আত্মপক্ষ সমর্থন করার চেষ্টা করলেও তাঁর এই সাফাইকে অবশ্য আমল দিচ্ছে না কূটনৈতিক মহল। তাদের মতে, গনির এই দাবি মোটেই নতুন নয়। কারণ, এর আগে দুবাইয়ে এসে এই একই দাবি করেছিলেন প্রাক্তন আফগান প্রেসিডেন্ট।

উল্লেখ্য, কাবুল দখল করেই স্বমেজাজে ফিরেছে তালিবান (Taliban)। মহিলাদের বেত্রাঘাত থেকে শুরু করে মার্কিন ফৌজের সঙ্গে কাজ করা আফগানদের খুঁজে বের করে হত্যা করছে জেহাদিরা। তবে মুখে বদলা নয়, বদলের বার্তাই দিয়ে যাচ্ছে হায়বতোল্লা আখুন্দজাদার জঙ্গি সংগঠনটি। কয়েকদিন আগেই আশরফ ঘানি ও স্বঘোষিত ‘কার্যনির্বাহী প্রেসিডেন্ট’ আমরুল্লা সালেহকে ক্ষমা করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিল তালিবান।কিন্তু আদৌ ঘানি দেশে ফিরবেন কি না, বা তালিবান শাসকরা তাঁর প্রতি কেমন ব্যবহার করবে তা সময়ই বলবে।  

[আরও পড়ুন: ট্রাম্পের পথেই বাইডেন, ইরানের সঙ্গে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ চুক্তি ‘বাতিলের হুমকি’ আমেরিকার]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে