BREAKING NEWS

৭ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

উত্তাল প্যারিসে জরুরি অবস্থার ভ্রুকুটি, গণবিক্ষোভ রুখতে তুঙ্গে তৎপরতা

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: December 3, 2018 11:24 am|    Updated: December 3, 2018 11:24 am

French President Emmanuel Macron visits riot-damaged Arc de Triomphe, state of emergency mulled

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: উত্তাল প্যারিস৷ জ্বালানির দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে গণবিক্ষোভে ফুঁসছে গোটা দেশ৷ বিদ্রোহের আগুনে জ্বলছে রাজধানী প্যারিস৷ রাস্তায় রাস্তায় পোড়ানো হচ্ছে সরকারি যানবাহন৷ ভস্মীভূত সরকারি কার্যালয়৷ প্রতি মুহূর্তে চলছে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষ৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে স্থানীয় প্রশাসনের তরফে কড়া পদক্ষেপেও লাভ হয়নি৷ ক্ষুব্ধ জনতাকে বাগে আনতে এবার চূড়ান্ত পদক্ষেপ নেওয়ার পথে হাটতে চলেছে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রঁ৷ দেশে জরুরি অবস্থা জারির কথা ভাবা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ফরাসি সরকারের মুখপাত্র বেঞ্জামিন গ্রিভাঁ৷ কেননা, গত এক দশকে এতটা উত্তাল হয়ে ওঠেনি প্যারিস৷ ফলে, পরিস্থিতি যে ভয়াবহ তা বুঝতে পেরেছেন প্রশাসনের শীর্ষ কর্তারা৷

[‘ইসলামের শত্রুরাই আমার বিরোধিতা করছে’, বিস্ফোরক জাকির নায়েক]

সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, জরুরি অবস্থা ঘোষণা করার আগে আজ, সোমবার প্রশাসনের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করতে পারেন প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ৷ পরিস্থিতি মোকাবিলায় পরবর্তী ক্ষেত্রে প্রশাসনের তরফে আরও কী কী পদক্ষেপ নেওয়া যায়, তা নিয়েও বিস্তারিত আলোচনা হওয়ার কথা৷ জি-২০ সম্মেলনে আর্জেন্টিনা সফরে ছিলেন ফারসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রঁ। সফর কাটছাঁট করে দেশে ফিরেই প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন তিনি৷ এদিন দেশে ফিরেই জনতার বিক্ষোভে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন তিনি৷ ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কত, তা জানাতেও স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দেন ম্যাক্রোঁ৷

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে গত তিন সপ্তাহ আগে ফ্রান্সের গাড়ি চালকেরা ‘ইয়েলো ভেস্ট’ আন্দোলন শুরু করেন৷ পরে, তা গণ আন্দোলনের রূপ নেয়৷ জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে গত দু’সপ্তাহ ধরে উত্তাল প্যারিস৷ প্রতিবাদের অঙ্গ হিসাবে বিক্ষোভকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে হলুদ ও লঙ্কা ছুঁড়তে থাকেন৷ পুলিশও পালটা কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে৷ এখনও পর্যন্ত ৪০০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ পুলিশ-জনতা সংঘর্ষে জখম হয়েছেন অন্তত ১১৩ জন৷ জনতার পালটা মারে জখম হয়েছেন ২৪জন পুলিশ কর্মী৷

[মেক্সিকোয় মার্কিন দূতাবাসে বিস্ফোরণ, বরাতজোরে রক্ষা ট্রাম্পকন্যার]

তবে, এই উত্তপ্ত পরিস্থিতির মাঝে বারংবার বিবৃতি দিয়ে ক্ষোভের আগুন দফায় দফায় বাড়িয়েছেন প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ৷ সংবাদ মাধ্যমে জানিয়েছেন, জ্বালানি তেলের উপর চাপানো অতিরিক্ত কর কোনওভাবেই কমানো হবে না৷ প্রেসিডেন্টের এই বিবৃতির পর পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হতে খুব বেশি সময় লাগেনি৷ প্যারিসের প্রধান সড়ক সজেঁ লিজে ঘিরে চলতে থাকে বিক্ষোভ৷ বিক্ষোভের আগুন ছড়িয়ে পড়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে৷ সরকারকে পর্যুদস্ত করতে বিক্ষোভকারীরা বেছে নেন প্যারিসের পর্যটন কেন্দ্রগুলি। দেশের প্রকৃত অবস্থা বোঝাতেই এই পদক্ষেপ বলে জানানো হয়েছে৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে