৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  শনিবার ২৬ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

নতুন পালক কিশোরী পরিবেশকর্মী গ্রেটার মুকুটে, নির্বাচিত ‘টাইমস পার্সন অফ দ‌্য ইয়ার’

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: December 12, 2019 7:44 pm|    Updated: December 12, 2019 9:31 pm

Greta Thunberg choosen as Times person of the year

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২০১৯ সালের ‘টাইমস পার্সন অফ দ‌্য ইয়ার’ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করল ষোড়শী সুইডিশ পরিবেশকর্মী গ্রেটা থুনবার্গ। বুধবার ম‌্যাগাজিনের পক্ষ থেকে গ্রেটার নাম ঘোষণা করা হয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের মতো বিষয় নিয়ে বিশ্বব‌্যপী সচেতনতা গড়ে তোলা গ্রেটার ভূমিকাকে স্বীকৃতি দিতেই এই পদক্ষেপ।

greta-thunberg-time

টাইমস ম‌্যাগাজিনের তরফে জানানো হয়েছে, পরিবেশ রক্ষার্থে গ্রেটা যা করেছেন, তা রীতিমতো প্রশংসনীয়। এই ষোড়শী কিশোরী রাতারাতি এই বিষয়ে গোটা দুনিয়াকে একজোট করেছেন। ২০১৮ সালে সুইডেনের পার্লামেন্টের বাইরে একা বসে এই কিশোরী জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে আন্দোলনে নামে। পরে এই আন্দোলনকেই গ্রেটা নিয়ে গিয়েছে বিশ্বের দরবারে। শুধু রাষ্ট্রসংঘে নয়, গ্রেটা আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক ফোরামেও বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে। প্রকাশ্যে রাষ্ট্রপ্রধানদের এ নিয়ে তৎপর না হওয়ার জন‌্য উষ্মা প্রকাশ করে। এমনকী, এই একই কারণে সুইডিশ কিশোরী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পেরও বিরাগভাজন হয়েছিল। টুইটারে তার পালটা জবাব দিতেও দ্বিধা করেনি মেয়েটি। এসব কর্মকাণ্ডের জন্য নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়নও পেয়েছিল। আমাজনে দাবানলের সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় সে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্টের নিন্দা করে তাঁর রোষেও পড়ে।

[আরও পড়ুন: ব্রেক্সিট জটের মাঝে ব্রিটেনে সাধারণ নির্বাচন, গরম নিয়েই ভোটের লাইনে আমজনতা]

সম্প্রতি মাদ্রিদে জলবায়ু সম্মেলনে সে হাজির হয়েছে স্রেফ একটা কায়াক সঙ্গী করে। সুইডেন থেকে মাদ্রিদ – পরিবেশ রক্ষার জন্য এই কায়াক চড়েই সে দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়েছে। সম্মেলনের আগেই তাকে বাইরে ঘিরে ধরে সাংবাদিক, সাধারণ মানুষ। পরে সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে গ্রেটা বলে, ”পৃথিবীকে বাঁচাতে এখনই যা করার, করতে হবে। আগামী ১০ বছরের মধ্যেই পৃথিবীর ভবিষ্যৎ নির্ধারিত হয়ে যাবে। তাই রাষ্ট্রনেতারা এখনই কিছু সৃষ্টিশীল কাজ করুন।”

greta-thunberg1
টাইম ম‌্যাগাজিন জানাচ্ছে, ২০১৮ সাল থেকে পরিবেশ রক্ষার জন্য যে আন্দোলন এই সুইডিশ কিশোরী শুরু করেছিলেন, বর্তমানে তা রীতিমতো গণ-আন্দোলনের চেহারা নিয়েছে। বিশ্বজুড়ে গ্রেটার কাজে প্রভাবিত হয়েছেন পরিবেশ কর্মী থেকে সাধারণ মানুষ – সকলে। আর টাইম ম্যাগাজিনও কিশোরী গ্রেটার বিশাল কর্মযজ্ঞকে স্বীকৃতি দিল।

[আরও পড়ুন: পাকিস্তানে অপহৃত খ্রিস্টান কিশোরী, ধর্মান্তকরণের পর বিয়ে]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে