৪ মাঘ  ১৪২৬  শনিবার ১৮ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo ফিরে দেখা ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৪ মাঘ  ১৪২৬  শনিবার ১৮ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক : শেষমেশ হাফিজ সইদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিল পাকিস্তান। ২০০৮-র মুম্বই হামলার মাস্টার মাইন্ড হাফিজ সইদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীগুলিকে আর্থিকভাবে মদত দেওয়ার অভিযোগে চার্জ গঠন করল সে দেশের সন্ত্রাস বিরোধী আদালত। ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়েই এই পদক্ষেপ করল ইমরান খানের দেশ।

জানা গিয়েছে, বুধবার আদালতে হাফিজের উপস্থিতিতেই সন্ত্রাস বিরোধী আদালতের বিচারপতি মালিক আরসাদ ভুট্টো অভিযোগগুলি পড়ে শোনান। সেখানে বলা হয়, পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের বিভিন্ন এলাকায় ঘটে যাওয়া একের পর এক সন্ত্রাসমূলক কার্যকলাপে আর্থিকভাবে মদত দিয়েছে নিষিদ্ধ জামাত-উদ-দোহা গোষ্ঠীর প্রধান হাফিজ সইদ। জানা গিয়েছে, ১৭ জুলাই পাঞ্জাব প্রদেশ পুলিশের সন্ত্রাস দমন শাখা হাফিজ সইদের বিরুদ্ধে ২৩টি এফআইআর দায়ের করে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেপ্তারও করা হয়। হাফিজ এখন লাখপত জেলে বন্দি। সূত্রের খবর, সন্ত্রাসে অর্থনৈতিক মদত জোগানোয় লাহোর, গুজরানওয়ালা ও মূলতানের বিভিন্ন প্রান্তে হাফিজের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অভিযোগ, ভিন্ন ভিন্ন নামে ট্রাস্ট, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা তৈরি করে একাধিক সম্পত্তি কিনেছে হাফিজ ও তার সঙ্গীরা। পরে সেগুলি সন্ত্রাসে অর্থনৈতিক জোগান দিতে ব্যবহার হয়েছে। 

প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহেই ভারতের তরফে অভিযোগ করা হয়েছিল, মুম্বই হামলার মূলচক্রী হাফিজ সইদ পাক সরকারের আতিথেয়তায় স্বাধীনভাবে  ঘুরে বেড়াচ্ছে। এ প্রসঙ্গে শুক্রবারই বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার জানিয়েছিলেন, “লস্কর-ই-তইবার মাথা হাফিজের বিরুদ্ধে সমস্ত তথ্যপ্রমাণ পাকিস্তানের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। পরবর্তী পদক্ষেপ সমস্তটাই পাকিস্তান পুলিশের হাতে।” এরপরই ১১ ডিসেম্বর পাকিস্তানের সন্ত্রাস বিরোধী আদালত হাফিজ ও মালিক জাফর ইকবালের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করে।

ওয়াকিবহাল মহলের দাবি, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পাকিস্তানের উপর চাপ দেওয়া হচ্ছিল। এরপরই লস্কর-ই-তইবা, জামাত-উদ-দোহা এবং তাদের ফালাহ-ই-ইনসানিয়ত ফাউন্ডেশনের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে পাকিস্তান। আগামী বছরের শুরুতেই সন্ত্রাস দমনে পাকিস্তানের ঢিলেঢালা মনোভাবের জন্য তাদের কালো তালিকাভুক্ত করার প্রস্তাব নিয়ে এফএটিএফের সম্মেলনে আলোচনা হওয়ার কথা। তার আগে পাকিস্তানের এই পদক্ষেপ নিসন্দেহে তাৎপর্যপূর্ণ।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং