BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনায় কাহিল পাকিস্তান, ১৪০ কোটি ডলার আর্থিক সাহায্য দিল IMF

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: April 18, 2020 1:00 pm|    Updated: April 18, 2020 1:00 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের হামলায় বিপন্ন পাকিস্তানের অর্থনীতি। বিদেশি মুদ্রার তহবিল প্রায় শূন্য। পাশাপাশি, দেখা দিয়েছে খাদ্য সংকট। এহেন সময়ে বিশ্বের কাছে বকেয়া ঋণ মকুব এবং আর্থিক মদতের আরজি জানিয়েছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এবার তাতে সাড়া দিল আন্তর্জাতিক অর্থভাণ্ডার বা IMF। করোনার জেরে উৎপন্ন আর্থিক সঙ্কট মোকাবিলায় প্রায় ১৪০ কোটি মার্কিন ডলার মঞ্জুর করেছে তারা। গত বছর জুলাই মাসে আইএমএফ পাকিস্তানকে ৬০০ কোটি মার্কিন ডলার ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।

[আরও পড়ুন: চিনের মতো করোনার সঠিক তথ্য দিচ্ছে না অনেক দেশই! ইঙ্গিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার]

ইসলামাবাদকে ঋণ দেওয়ার সপক্ষে যুক্তি দিয়ে IMF-এর অন্যতম শীর্ষ কর্তা জেফরি ওকামোটো বলেন, “করোনা মহামারির ব্যাপক প্রভাব পড়েছে পাকিস্তানের অর্থনীতিতে।বর্তমান পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের সার্বিক উন্নয়ন ও সে দেশের নাগরিকদের উন্নতির জন্য এই অর্থ প্রদান করা হয়েছে।” তিনি আরও বলেন, করোনার প্রকোপ রুখতে ও গোষ্ঠী সংক্রমণ ঠেকাতে যথাযত ব্যবস্থা নিচ্ছে পাক সরকার। স্বাস্থ্য পরিষেবা উন্নত করতে বর্তমান পরিস্থিতিতে বিশেষ প্যাকেজ ঘোষণাও করেছে ইসলামাবাদ।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের বিদেশি মুদ্রার তহবিল প্রায় শূন্য। গত বছরের জুলাই মাসে ইসলামাবাদ জানিয়েছিল তাদের ভাঁড়ারে বিদেশি মুদ্রা বলতে রয়েছে মাত্র ৮০০ কোটি মার্কিন ডলার। প্রায় দু’মাসের আমদানির বকেয়া মেটাতেই তা শেষ হয়ে যাবে। তারপরই আমেরিকার শরণাপন্ন হয়েছিল ইমরান সরকার। ওয়াশিংটনের অঙ্গুলি হেলনেই গত বছর জুলাই মাসে আইএমএফ পাকিস্তানকে ৬০০ কোটি মার্কিন ডলার ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।

এদিকে, করোনা মোকাবিলায় পাকিস্তানকে পাশে দাঁড়িয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও। কোভিড-১৯ মহামারি রুখতে ইসলামাবাদকে ৮০ লক্ষ মার্কিন ডলার দিয়েছে ওয়াশিংটন। একটি ভিডিও বার্তায় মার্কিন মিশন জানিয়েছে, ওই টাকায় করোনা টেস্টের জন্য পাকিস্তানে তিনটি নতুন ল্যাব তৈরি করা হবে। পাশাপাশি, ইসলামাবাদ, সিন্ধ, খাইবার পাখতুনখোয়া ও বালোচিস্তানে চিকিৎসা কেন্দ্র গড়ে তোলা হবে। তবে বিশ্লেষকদের মতে, করোনা বিপর্যয়ের মধ্যেও স্বভাব পালটায়নি পাকিস্তানের। রাওয়ালপিণ্ডির নির্দেশে ভারত-সহ পড়শি দেশগুলিতে এখনও সন্ত্রাস রপ্তানি করে যাচ্ছে কুখ্যাত পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই। অনুদানের টাকা যে জেহাদি কার্যকলাপে খরচ করা হবে না, এমন দাবি কারও পক্ষে করা সম্ভব নয়।

[আরও পড়ুন: উপসর্গের আগেই মারমুখী সংক্রমণ নোভেল করোনার, গবেষণায় উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement