Advertisement
Advertisement
লাদাখ

ভারত-চিন যুদ্ধ কি আসন্ন? লাদাখ সীমান্তে অত্যাধুনিক অস্ত্র মজুত করছে দুই দেশই

কাশ্মীর থেকে সেনা সরিয়ে লাদাখ সীমান্তে সেনা মোতায়েন করা হচ্ছে।

India and China expanded high-altitude weapon systems near Ladakh

প্রতীকী ছবি

Published by: Paramita Paul
  • Posted:June 1, 2020 2:05 pm
  • Updated:June 1, 2020 3:04 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারত-চিনের যুদ্ধ কি তবে অনিবার্য? দুদেশের কর্মকাণ্ড দেখে এই প্রশ্নটাই ঘুরছে দেশের আনাচ-কানাচে। সূত্র বলছে, লাদাখের কাছে অত্যাধুনিক অস্ত্র মজুত করছে ড্রাগনের দেশ। তাদের অস্ত্র সম্ভারে রয়েছে হালকা ওজনের ট্যাঙ্ক থেকে ভারী মালবহনকারী ড্রোন।আবার বহু অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান। পিছিয়ে নেই ভারতও। কাশ্মীর থেকে সেনা সরিয়ে লাদাখে চিনা সীমান্ত বরাবর তাঁদের মোতায়েন করা হচ্ছে বলে খবর। তবে এসব নাকি রুটিনমাফিকই হচ্ছে বলে জানান সেনার পদস্থ আধিকারিকরা।

গত ২৫ দিন ধরে লাদাখে মুখোমুখি ভারত-চিন সেনা বাহিনী। বাড়ছে তিক্ততা। এমন পরিস্থিতিতে পূর্ব লাদাখের দুই প্রান্তে ভারী যুদ্ধ সামগ্রী, অস্ত্র, আর্টিলারি গান এবং কমব্যাট ভেহিকল মজুত রাখার কাজ শুরু হয়েছে। এমন খবরই জানানো হয়েছে সেনা সূত্রের তরফে। প্রসঙ্গত দুই দেশের মধ্যে সামরিক এবং কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা করে এই সমস্যার সমাধান খোঁজার চেষ্টা চলছে। এমন অবস্থায় সীমান্তে সমরসজ্জা বাড়ছে। বিতর্কিত এই অঞ্চলে আকাশ পথে কড়া নজরদারি চালাচ্ছে ভারতীয় বায়ুসেনা।

Advertisement

[আরও পড়ুন : ভারত থেকে ফেরার পথে বাস দুর্ঘটনা, নেপালে মৃত ১২ জন পরিযায়ী শ্রমিক]

পিছিয়ে নেই চিনও। ড্রাগনের দেশের সেনা পূর্ব লাদাখের লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কনট্রোল (LAC) বরাবর ধীরে ধীরে বাড়াচ্ছে তাদের অস্ত্র ভান্ডার। কিছুদিন আগে জানা গিয়েছি, প্যাংগং লেক থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরে বিশ্বের উচ্চতম বিমানঘাঁটিগুলির মধ্যে অন্যতম গারি গুনশায় বেশ কয়েকটি যুদ্ধবিমান মোতায়েন করেছে চিনা ফৌজ। লাইন অফ কন্ট্রোলের কাছে মোতায়েন বিমানগুলির মধ্যে অন্যতম হল J-11 এবং J-16 ফাইটার। নতুন করে সেখানে টাইপ ১৫ ট্যাঙ্ক, z-20 হেলিকপ্টার ও GJ-2 ড্রোন মোতায়েন করা হয়েছে। বলছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। পিছিয়ে নেই ভারতীয় সেনা বাহিনী। যে কোনও পরিস্থিতিতে চিনকে উচিত জবাব ফিরিয়ে দিতে প্রস্তুত তারাও। ভারতীয় সেনা বাহিনীর তরফে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, যতদিন না সব সমস্যার মীমাংসা হচ্ছে ততদিন একচুলও নড়বে না। ফলে লাদাখ সীমান্তে ক্রমেই যুদ্ধের আশঙ্কা বাড়ছে।

Advertisement

[আরও পড়ুন : হোয়াইট হাউসের বাইরে পুলিশ-জনতা খণ্ডযুদ্ধ, ভয়ে গোপন বাঙ্কারে ঠাঁই ট্রাম্পের]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ