BREAKING NEWS

২৯ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

শতাব্দী প্রাচীন বৌদ্ধ নিদর্শন ধ্বংস পাক অধীকৃত কাশ্মীরে, তীব্র নিন্দা ভারতের

Published by: Bishakha Pal |    Posted: June 4, 2020 2:10 pm|    Updated: June 4, 2020 2:10 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নতুনভাবে পাকিস্তান গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে মসনদে বসেছিলেন ইমরান খান। কিন্তু তারপর থেকে প্রতিশ্রুতি পালন তো হচ্ছেই না, বরং বিপরীত ঘটনাই ক্রমাগত ঘটছে পাকিস্তানে। কিছুদিন আগে নানকানা সাহিবের গুরুদ্বারে হামলার ঘটনা ঘটে। হিন্দু মেয়েদের জোর করে ধর্মান্তরিত করা তো নিত্যদিনে ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এবারও এক নিন্দনীয় ঘটনা ঘটাল পাকিস্তান। প্রায় ১২০০ বছর পুরনো বৌদ্ধ নিদর্শন ধ্বংস করা হয়েছে পাক অধিকৃত কশ্মীরে। পাক অধিকৃত কাশ্মীরের গিলগিট বাল্টিস্তানের এই ঘটনা যেন টাটকা করে দিল বামিয়ানে বৌদ্ধমূর্তি ধ্বংসের স্মৃতি।

এ যেন সত্যিই ২০০১ সালে বামিয়ানের ঘটনারই পুনরাবৃত্তি। ১৯ বছর আগে বামিয়ান উপত্যকায় সহস্র শতাব্দী প্রাচীন বুদ্ধমূর্তি ধ্বংস করেছিল তালিবানরা। আর এবার সেই একই ঘটনা ঘটল পাক অধীকৃত গিলগিট বাল্টিস্তানে। ধ্বংস করা হল ১২০০ বছরের পুরনো বৌদ্ধ নিদর্শন। শুধু তাই নয়। পাথরের উপর খোদাই করা বৌদ্ধমূর্তিরও ক্ষতি করেছে ধ্বংসকারীরা। ঐতিহাসিক ও পুরাতাত্ত্বিক ওই নিদর্শনের গায়ে লেপে দেওয়া হয়েছে কালি। আঁকা হয়েছে পাকিস্তানের পতাকাও। মঙ্গলবার পাকিস্তানের এই নিন্দনীয় আচরণ প্রকাশ্যে আসে। এলাকার বৌদ্ধধর্মালম্বীরা সেই স্থানে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়েছিলেন। তখনই জানা যায় কেউ বা কারা ধ্বংস করে দিয়েছে মূল্যবান এই নিদর্শন।

[ আরও পড়ুন: বাড়ল সংঘাত, এবার চিনা বিমান প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করল আমেরিকা ]

এই খবর প্রকাশ পাওয়া মাত্র ভারতের তরফে ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানিয়য়েছেন, এই ঘটনার মাধ্যমে প্রাচীন ভারতীয় সভ্যতা ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের অবমাননা করা হয়েছে। অনুরাগ বলেন, “পাকিস্তানের অবৈধ ও জোরপূর্বক দখল করে রাখা গিলগিট-বাল্টিস্তান অঞ্চলে অবস্থিত অমূল্য ভারতীয় বৌদ্ধ ঐতিহ্য ভাঙচুর, অবক্ষয় ও ধ্বংসের ঘটনায় আমরা তীব্র নিন্দা করেছি।” পাশাপাশি অবৈধভাবে দখল করে রাখা সমস্ত অঞ্চল যত দ্রুত সম্ভব খালি করে দেওয়ার জন্যও পাকিস্তানকে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে ভারত। এও জানানো হয়েছে, ওই সব অঞ্চলের মানুষের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক অধিকার ছিনিয়ে নেওয়ার কোনও অধিকার পাকিস্তানের নেই। ভারতের এই স্পষ্ট অবস্থানে এবার পাকিস্তান মাথা নোয়াবে কিনা সেটাই দেখার।

[ আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত ছিলেন জর্জ ফ্লয়েড, ময়নাতদন্তের পর প্রকাশ্যে চাঞ্চল্যকর তথ্য ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement