Advertisement
Advertisement

ভারতের পাশে দাঁড়িয়ে সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি ট্রাম্পের

রিয়াধ সামিটে নাম না করে পাকিস্তানকে খোঁচা মার্কিন প্রেসিডেন্টের।

Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:May 22, 2017 5:30 am
  • Updated:May 22, 2017 5:32 am

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিদেশের মাটিতে নিজের প্রথম বক্তৃতাতেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বুঝিয়ে দিলেন সন্ত্রাসবাদকে কোনওভাবেই প্রশ্রয় দেওয়া হবে না। পাশাপাশি নাম না করে সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তানকে খোঁচা দিতেও ছাড়লেন না তিনি। শুধু তাই নয়, ভারত যে ‘সন্ত্রাসবাদের শিকার’ সেকথা সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াধে চলা আরব-ইসলামিক-ইউএস সম্মেলনে দাঁড়িয়ে মেনেও নিলেন। তাঁর মতে, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সবাইকে একসঙ্গে লড়তে হবে। বিশ্বের প্রতিটি দেশকেই লক্ষ্য রাখতে হবে, জঙ্গিরা যেন সন্ত্রাস ছড়ানোর জন্য তাঁদের জমি ব্যবহারের সুবিধা না নিতে পারে। এজন্য প্রত্যেকটি দেশকেই আরও সচেতন হতে হবে।

[জম্মু ও কাশ্মীরে নিকেশ ৪ জঙ্গি, গুলির লড়াইয়ে শহিদ ৩ জওয়ান]

প্রেসিডেন্টের কুর্সিতে বসার পর থেকেই ট্রাম্প জানিয়েছিলেন, সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে কাউকেই রেয়াত করবেন না। এদিন সম্মেলনে বক্তৃতা রাখতে গিয়ে এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘চরমপন্থী মতাদর্শের বিরুদ্ধে লড়াই চালাতে পশ্চিম এশিয়ার দেশগুলিকে নিয়ে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। আমেরিকা থেকে ভারত, অস্ট্রেলিয়া থেকে রাশিয়া প্রত্যেকটি দেশ সন্ত্রাসবাদের শিকার। বারংবার নির্মম সন্ত্রাসবাদী হামলার ঘটনা ঘটে চলেছে এই দেশগুলিতে।’ এরপরেই পাকিস্তানের নাম না করে তিনি বলেন, ‘প্রত্যেকটি দেশকে নজর রাখতে হবে সন্ত্রাসবাদীরা যেন হিংসা, আতঙ্ক ছড়ানোর জন্য সেই দেশের মাটি ব্যবহার না করতে পারে।

Advertisement

[অনুষ্ঠানের মধ্যেই স্বামী ওমকে উত্তম-মধ্যম জনতার, দেখুন ভিডিও]

গত এক দশক ধরেই পশ্চিম ও মধ্য এশিয়ায় ইসলামিক জঙ্গিগোষ্ঠীর দৌরাত্ম্য বেড়েছে। তাই এই অঞ্চলের দেশগুলিকেই ইসলামিক জঙ্গিগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এগিয়ে আসার ডাক দেন তিনি। ট্রাম্পের মতে, এটা কখনই পাশ্চাত্য এবং ইসলামের বিরুদ্ধে লড়াই নয়। এটা ভাল-র সঙ্গে শয়তানের লড়াই। সন্ত্রাসবাদকে মূল থেকে বিনষ্ট করার ডাক দিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘এটা কখনই ভিন্ন বিশ্বাস, ভিন্ন ধর্ম, ভিন্ন জাতির মধ্যে লড়াই নয়। এটা সেই নৃশংস অপরাধীদের বিরুদ্ধে লড়াই, যারা কিনা মানবসমাজকে ধ্বংস করতে উদ্যত। প্রত্যেক ধর্মের যে সমস্ত মানুষ মানবজাতিকে বাঁচাতে চান, তাঁদেরই এই নৃশংসতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এগিয়ে আসতে হবে।’ এর পাশাপাশি মুসলিম নেতৃত্বকে চরমপন্থী মতাদর্শকে দূর করতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান ট্রাম্প। বলেন, ‘সন্ত্রাসবাদ দমনে আমেরিকা কখন এগিয়ে আসবে? মধ্য এশিয়ার দেশগুলির সেজন্য অপেক্ষা করা একদমই উচিত নয়। তাঁদেরই ঠিক করতে হবে দেশের জন্য, নিজেদের জন্য এবং নিজেদের ছেলেমেয়ের জন্য তাঁরা কীরকম ভবিষ্যত চান।’

Advertisement

[সুস্থ হলেই ফের রাজনীতিতে, জানিয়ে দিলেন সুদীপ]

এদিকে, ৫০টি মুসলিম দেশের শীর্ষনেতৃত্বের সঙ্গে সম্মেলনে যোগ দিলেও সৌদির রাজা সালমান বিন আবদুল্লাজিজ আল সাউদ এবং আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে সৌদি আরব চাইলেও সম্মেলনে যোগ দেওয়া পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে যোগ দেবেন না মার্কিন প্রেসিডেন্ট। জানিয়েছে সেখানকার আমেরিকান দূতাবাস।

[মোহময়ী সাজে গাড়ি থেকে নামলেন ঐশ্বর্য, তারপর…]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ