BREAKING NEWS

১১ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

হাডসন নদীতে ভারতীয় গণিতজ্ঞের মৃতদেহ, কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা

Published by: Arupkanti Bera |    Posted: April 17, 2021 9:41 am|    Updated: April 17, 2021 10:32 am

Indian mathematician's dead body recovered from Hudson river of New York । Sangbad Pratidin

প্রতীকী চিত্র।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতীয় বংশোদ্ভূত ৩১ বছরের এক গণিতবিদের (Mathematician) মৃতদেহ পাওয়া গেল নিউ ইয়র্কের (New York) হাডসন নদীতে। ক্রিপ্টোকারেন্সি এবং কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তা বা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) নিয়ে কাজ করছিলেন শুভ্র বিশ্বাস নামের গণিতবিদ। তিনি মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলেন বলে জানা গিয়েছে। গত সোমবার হাডসন নদীতে তাঁর মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছে। তাঁর মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

শুভ্রর দাদা বিপ্রজিৎ জানিয়েছেন, তিনি এবং তাঁর পরিবার শুভ্রকে সুস্থ হয়ে উঠতে সাহায্য করছিলেন। কিন্তু কোনও কিছুই কাজে আসেনি। “দুর্দান্ত ছেলে ছিল শুভ্র। ব্রিলিয়ান্ট ছেলে ছিল ও,” বলেছেন বিপ্রজিৎ। তিনি আরও জানিয়েছেন যে, স্বাধীনভাবে কাজ করতেন শুভ্র। সাম্প্রতিকে তিনি ক্রিপ্টোকারেন্সি সিকিউরিটি প্রোগ্রাম নিয়ে কাজ করছিলেন। তাঁর অনলাইন প্রোফাইল থেকে জানা গিয়েছে, শুভ্র আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স নিয়েও যথেষ্ট আগ্রহী ছিলেন।

[আরও পড়ুন: চিকিৎসা পরিষেবা ঠিক রাখতে প্রয়োজনে কনটেনমেন্ট জোন দিয়েও যাতায়াত, নির্দেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের]

বিপ্রজিৎ জানিয়েছেন, গত এক বছরে ভাইয়ের ব্যবহারে বদল নজরে আসে তাঁদের। কিন্তু শুভ্র একা থাকতে পছন্দ করতেন বলে তাঁকে এ ব্যাপারে কিছু বলেনি তাঁর পরিবার। “আমরা অনেক চেষ্টা করেছিলাম ওকে বলার যাতে ও পেশাদারের সাহায্য নেয়। কিন্তু শুভ্র বারবার বলত, মনোবিদের সাহায্য ওর দরকার নেই। একজন নিউরোলজিস্টের কাছে যাচ্ছিল ও, কিন্তু কেন যাচ্ছিল তা নিয়ে আমাদের কিছু বলেনি,” ব্যাখ্যা বিপ্রজিতের।

ম্যানহ্যাটানের ওয়েস্ট থার্টিসেভেন্থ স্ট্রিটে একটি অ্যাপার্টমেন্টে থাকতেন শুভ্র। পুলিশ সূত্রের খবর, গত ফেব্রুয়ারিতে অ্যাপার্টমেন্ট বিল্ডিংয়ের ম্যানেজমেন্ট তাঁকে ম্যানহ্যাটান সুপ্রিম কোর্টে নিয়ে যান। বিল্ডিংয়ে ‘উদ্ভট’ কাজকর্ম করার অভিযোগে তাঁকে বাড়ি থেকে উৎখাত করতে চেয়েছিল তারা। তাদের দাবি, বাড়িতে আগুন জ্বালিয়ে ফেলতেন শুভ্র। সবার সামনে ছুরি নিয়ে ঘুরতেন। লিফটের ভেতর রক্ত লেপে দিতেন। সেই মামলার নথিপত্র খতিয়ে দেখছে পুলিশ। সেখানে এক জায়গায় আইনজীবী লিখেছেন, “এই অভিযুক্ত সক্রিয় টাইম বোমা। কয়েক মাস ভাড়া থাকার মধ্যেই সে উদ্ভট কাজকর্ম শুরু করেছে। যাতে বাড়ির অন্যান্য বাসিন্দা এবং কর্মীর নিরাপত্তা নিয়ে ঝুঁকি তৈরি হয়েছে।” ফ্ল্যাটের ম্যানেজমেন্টের পক্ষে আরও দাবি করা হয়েছিল যে, ইচ্ছে করে শুভ্র নিজের বাড়িতে একটি গদিতে আগুন লাগিয়ে দিয়েছিলেন। সে সময় তাঁর ফ্ল্যাটে প্রোপেন গ্যাসের খোলা ট্যাঙ্ক রেখে দিয়েছিলেন তিনি। বেআইনিভাবে ফ্ল্যাটে সিসিটিভি এবং অ্যালার্ম সিস্টেম লাগিয়েছিলেন শুভ্র।

[আরও পড়ুন: স্টেশন থেকে দৌড়ে পালাচ্ছেন শয়ে শয়ে যাত্রী, জানেন আসল কারণ?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে