১৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শুক্রবার ৩ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

প্রথম মার্কিন মহিলা প্রেসিডেন্ট হতে পারেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 13, 2016 11:28 am|    Updated: November 13, 2016 11:28 am

Indian-origin Kamala Harris has the potential to be the first woman President of US: Report

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লক্ষ্যের কাছে এসেও সফল হতে পারেননি হিলারি ক্লিনটন৷ আপাতত কোনও প্রবল জনপ্রিয় মুখ নেই ডেমোক্র্যাট পার্টিতে৷ ২০২০ মার্কিন প্রেসিডেণ্ট নির্বাচন নিয়ে তাই এখন থেকেই ভাবনাচিন্তা শুরু করেছে ডেমোক্র্যাট শিবির৷ প্রবল রিপাবলিকান হাওয়ার মধ্যেও ক্যালিফোর্নিয়া থেকে জিতে আসা প্রথম ভারতীয় বংশোদ্ভূত মহিলা সেনেটর কমলা হ্যারিসকে নিয়ে তাই আশায় বুক বাঁধছেন তাঁদের একাংশ৷

কট্টরপন্থী রিপাবলিকানদের মধ্য থেকে কোনও অশ্বেতাঙ্গ প্রার্থীকে দেশের সর্বোচ্চ পদের জন্য মনোনীত করা হবে না, তা নিশ্চিত৷ কিন্তু ডেমোক্র্যাটরা অনেক বেশি মুক্তচিন্তায় বিশ্বাসী৷ তাদের তরফ থেকেই আমেরিকাকে বারাক ওবামার মতো প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট উপহার দেওয়া হয়েছিল৷ কয়েক পুরুষ আগে কেনিয়া থেকে তাঁর পূর্বপুরুষরা আমেরিকায় এসেছিলেন৷ ওবামা নিজে জন্মেছিলেন হাওয়াই-এর হনলুলুতে৷ তিনিই প্রথম মার্কিন ভূখণ্ডের বাইরে জন্মগ্রহণ করা প্রেসিডেন্ট৷

(৬৮ বছর পর দেখা মিলবে ‘সুপার মুন’-এর)

ডেমোক্র্যাট শিবিরের খবর, বর্তমান ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামাকে পরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হবে৷ তবে তিনি রাজনীতি নিয়ে বিশেষ আগ্রহী নন বলেই খবর৷ এদিকে, হিলারি ও বিল ক্লিনটনের কন্যা চেলসিকে ডেমোক্র্যাট পার্টি তৈরি করছে হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস-এ পাঠানোর জন্য৷ এই অবস্থায় রিপাবলিকানদের চ্যালেঞ্জ জানানোর মতো মুখ খুব বেশি নেই৷ ডেমোক্র্যাট প্রাইমারিতে হিলারির কাছে পরাজিত সেনেটর বার্নি স্যান্ডার্স আছেন ঠিকই৷ কিন্তু ডেমোক্র্যাটরা আরও কয়েকটি বিকল্প মুখের খোঁজে৷ মার্কিন মুলুকের নামী সংবাদপত্র হাফিংটন পোস্টের রিপোর্ট অনুযায়ী, কমলা হ্যারিসের মধ্যে দেশের প্রথম মহিলা প্রেসিডেন্ট হওয়ার গুণাবলী খুঁজে পেয়েছেন ডেমোক্র্যাটরা৷

মঙ্গলবার ক্যালিফোর্নিয়া থেকে বিপুল ভোটে সেনেটে জিতেছেন ৫১ বছরের কমলা হ্যারিস৷ যাঁর মা চেন্নাই থেকে মার্কিন মুলুকে গিয়েছিলেন৷ বাবা জামাইকার মানুষ৷ ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা ক্যালিফোর্নিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল৷ প্রবল জনপ্রিয়৷ শুধু তাই নয়, জয়ের পরের দিনই তিনি দেশব্যাপী ট্রাম্পের বিভিন্ন্ নীতির বিরুদ্ধে প্রচার শুরু করেছেন৷ বিশেষত, প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট ট্রাম্পের অভিবাসন নীতি ও অভিবাসীদের গণহারে আমেরিকা থেকে বের করে দেওয়ার বিরোধী তিনি৷ ক্যালিফোর্নিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল হিসাবে কমলার ট্র্যাক রেকর্ড ঈর্ষণীয়৷ পাশাপাশি, প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, ভাইস প্রেসিডেন্ট ডো বিডেন-সহ শীর্ষ ডেমোক্র্যাট নেতৃত্ব তাঁকে খুবই পছন্দ করেন৷ মার্কিন পত্রিকাটির দাবি, এই যোগাযোগের জেরে পরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কমলা প্রার্থী হলে তাঁর দারুণ সুবিধা হবে দেশজুড়ে৷ পরাজয়ের পর ভাষণে হিলারি বলেছিলেন, “আমি জানি, এই সবচেয়ে উঁচু, সবচেয়ে কঠিন কাঁচের দেওয়াল আমরা ভাঙতে পারলাম না৷ কিন্তু কোনও একদিন, কেউ না কেউ সেই প্রাচীর ভাঙবে৷ হয়তো আমরা যতদিন পরের কথা ভাবছি, আশা করি তার চেয়েও আগে৷”

(নয়া প্রেসিডেন্ট নাপসন্দ, ট্রাম্প টাওয়ারের নিচে প্রতিবাদ লেডি গাগার)

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে