BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বুধবার ২ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে জারি গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: June 30, 2020 1:33 pm|    Updated: June 30, 2020 1:40 pm

An Images

ফাইস চিত্র।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের (Donald Trump) বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করল ইরান (Iran)। বাগদাদে ইরানের শীর্ষ সেনাকর্তা কাশেম সোলেমানির হত্যায় ট্রাম্পের হাত রয়েছে বলে দাবি করেছে তেহরান। মার্কিন প্রেসিডেন্টকে গ্রেপ্তার করতে ইন্টারপোলের কাছেও সাহায্যের আবেদন করেছে দেশটি।

[আরও পড়ুন: করোনা বিদায় নিতে এখনও অনেক দেরি, ফের সতর্ক করল WHO]

ইরানের সরকার নিয়ন্ত্রিত সংবাদ সংস্থা ইসনা সূত্রে খবর, তেহরানের সরকারি আইনজীবী আলি আলকাসিমেহের জানিয়েছেন, গত ৩ জানুয়ারি বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ড্রোন হামলায় ‘কাডস ফোর্স’-এর কমান্ডার জেনারেল কাশেম সোলেমানির (Soleimani) মৃত্যুর জন্য দায়ী ট্রাম্প ও ৩০ জনের বেশি লোক। তাঁরা ‘হত্যা ও সন্ত্রাসবাদে’ অভিযুক্ত। যদিও ট্রাম্প বাদে বাকিদের নাম করেননি আলকাসিমেহের। তবে জানিয়েছেন, ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট পদের মেয়াদ শেষের পরও তাঁর বিচার চেয়ে সরব হবে ইরান। ইতিমধ্যে ট্রাম্প ও বাকিদের বিরুদ্ধে ‘রেড নোটিস’ জারির আবেদন করেছে ইরান। এটা ইন্টারপোলের সর্বোচ্চ স্তরের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা। এমন ক্ষেত্রে আবেদনকারী দেশের তরফে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

এদিকে, ইরান পরোয়ানা জারি করলেও তা নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের ভাবনার কিছু নেই। ইতিমধ্যে ইরানের দাবি খারিজ করে দিয়েছে ইন্টারপোল। ফ্রান্সের লিওঁতে থাকা সদরদপ্তর থেকে একটি বিবৃতি জারি করে ইন্টারপোল সাফ জানিয়েছে, তাদের সংবিধান মতে কোনও ধরনের রাজনৈতিক, সামরিক বা ধার্মিক ক্ষেত্রের ঘটনাক্রমে অংশ নেওয়া বারণ। তাই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করতে পারেব না তারা।

উল্লেখ্য, তেহরানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক মহলের পরমাণু চুক্তি থেকে আমেরিকাকে সরিয়ে আনার পর থেকে ইরান ও আমেরিকার মধ্যে সংঘাত বাড়ছে। চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে আচমকা বাগদাদ এয়ারপোর্ট ড্রোন হামলা চালায় আমেরিকা। তিনটি রকেট ছোঁড়া হয়। এর ফলে ইরানের এলিট গার্ড ফোর্সের প্রধান কমান্ডার কাশেম সোলেমানি, PMF-এর ডেপুটি কমান্ডার আবু মেহদি আল-মুহানদিস ও বিমানবন্দরের প্রোটোকল অফিসার মহম্মদ রেদা-সহ আটজনের মৃত্যু হয়।

[আরও পড়ুন: রুশ ষড়যন্ত্রে নিহত মার্কিন সেনা! ‘ভিত্তিহীন’ অভিযোগ খারিজ ট্রাম্পের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement