BREAKING NEWS

২৩ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শনিবার ৬ জুন ২০২০ 

Advertisement

বাগদাদির মৃত্যুর খবর স্বীকার ইসলামিক স্টেটের, নয়া প্রধানের নাম ঘোষণা

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: November 1, 2019 9:32 am|    Updated: November 1, 2019 11:04 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আবু বকর আল বাগদাদির মৃত্যু নিশ্চিত করল আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট। পাশাপাশি নয়া প্রধানের নামও ঘোষণা করল সংগঠনটি। এবার থেকে আইএস নিয়ন্ত্রণ করবে কুখ্যাত জঙ্গি আবু ইব্রাহিম আল হাশিমি আল কুরেশি।

ইসলামিক স্টেটের মুখপাত্র আবু হামজ়া আল-কুরেশি এক অডিয়ো বার্তার মাধ্যমে তাদের নতুন প্রধানের নাম ঘোষণা করে ৷টেলিগ্রাম অ্যাপে প্রচারিত ওই অডিয়ো বার্তায় বাগদাদির মৃত্যু নিশ্চিত করে আইএস। পাশাপাশি তাদের নতুন প্রধানের নাম ঘোষণা করে অ্যামেরিকাকে নতুন করে হুমকিও দেওয়া হয়। বিশ্লেষকরা মনে করছেন, দল যাতে ছত্রভঙ্গ না হয়ে যায়, তাই তড়িঘড়ি নয়া প্রধান ঘোষণা করেছে আইএস। এছাড়াও, প্রধান ঘোষণায় দেরি হলে জঙ্গি সংগঠনটির মধ্যেই ক্ষমতার লড়াই শুরু হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল। উল্লেখ্য, গত রবিবার মার্কিন প্রতিরক্ষা সূত্রে জানানো হয়, ইসলামিক স্টেট জঙ্গি সংগঠনের শীর্ষ নেতা আবু বকর আল বাগদাদি সিরিয়ায় ইদলিব প্রদেশের বারিশা এলাকায় এক অভিযানে নিহত হয়। বেলা গড়াতে সে খবরে সিলমোহর দেন খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, ‘রাস্তার কুকুরের মতো মারা গিয়েছে কাপুরুষ বাগদাদি। বেশ কিছুক্ষণ লড়াইয়ের পর একটি সুড়ঙ্গে ঢুকে পরে সে। তবে সেটি থেকে বেরনোর কোনও পথ ছিল না। মার্কিন সৈনিকদের সামনে তিনটি শিশুকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছিল সে। অবশেষে কাঁদতে শুরু করে জঙ্গি নেতা। আতঙ্কে দিশেহারা হয়ে প্রবল চিৎকার শুরু করে বাগদাদি। তারপরই সুইসাইড ভেস্টের বোতাম টিপে বিস্ফোরণ ঘটায়। তার সঙ্গে মারা পড়ে তিনটি শিশু ও তার দুই স্ত্রী।’

গোয়েন্দা সূত্রে খবর, আল-কুরেশির প্রধান পদে নির্বাচন খানিকটা অপ্রত্যাশিত ছিল। ওই পদের সবচেয়ে প্রবল দাবিদার ছিল জঙ্গি সংগঠনটির ‘সেকেন্ড-ইন-কমান্ড’ অবদুল্লা কারদাস। ইরাকের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট সাদ্দাম হুসেনের সেনে অফিসার ছিল সে। ইসলামিক স্টেটের নৃশংস আইনের প্রতি প্রবল আস্থা ও প্রচণ্ড শৃঙ্খলাপরায়ণ হওয়ায় এই নামে ডাকা হয় তাঁকে। হিংস্র স্বভাবের হলেও দলের অন্দরে বেশ জনপ্রিয় কারদাস। আইএস পরিচালিত সংবাদ সংস্থা ‘আমাক’ জানিয়েছে, গত আগস্ট মাস থেকেই দলের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাজের ভার কারদাসের উপর ছেড়ে দিয়েছিল বাগদাদি। জানা গিয়েছে, সুন্নি সম্প্রদায় অধ্যুষিত ইরাকের তাল আফার শহরে জন্ম হয় অবদুল্লা কারদাসের। কর্মজীবন শুরু হয় ইরাকি সেনাবাহিনীতে। কর্মদক্ষতার বলে শীঘ্রই অফিসার পদ পায় সে। ২০০৩ সালে ইরাকে হামলা চালায় আমেরিকা। আল কায়দার সঙ্গে যোগ থাকার অভিযোগে বন্দি করা হয় কারদাসকে। জেলেই বাগদাদির সঙ্গে দেখা হয় তার।

[আরও পড়ুন: কীভাবে খতম হল বাগদাদি, অপারেশনের ভিডিও প্রকাশ আমেরিকার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement