BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘কিম বহাল তবিয়তেই রয়েছেন’, দক্ষিণ কোরিয়ার দাবি ঘিরে নয়া জল্পনা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 27, 2020 5:41 pm|    Updated: April 27, 2020 10:12 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিব্যি রয়েছেন উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন। তাঁর মৃত্যু সংবাদ একেবারেই ভুয়ো। স্পষ্ট করল প্রতিবেশী অথচ যুযুধান দেশ দক্ষিণ কোরিয়া। সে দেশের প্রেসিডেন্ট মুন-জাই-ইনের শীর্ষ নিরাপত্তা আধিকারিকের দাবি, কিম বহাল তবিয়তেই আছেন। তিনি আরও জানিয়েছেন যে কিম রিসর্ট শহর ওনসানে রয়েছেন। একদিন আগেই ওই শহরের লিডারশিপ স্টেশনে কিম পরিবারের ব্যক্তিগত ট্রেন দেখা গিয়েছিল। স্যাটেলাইট ছবি দেখেই ফের কিমের জীবিত থাকার জল্পনা উসকে ওঠে। দক্ষিণ কোরিয়ার শীর্ষ নিরাপত্তা আধিকারিকের দাবিতে তা যেন আরও শক্ত ভিতের উপর দাঁড়াল।

মুন চুং-ইন, দক্ষিণ কোরিয়ার শাসকের খাস নিরাপত্তা পরামর্শদাতা বলেন, “গত ১৩ তারিখ থেকে কিম জং উন ওনসান শহরেই রয়েছেন। তাঁর গতিবিধিতে সন্দেহজনক কিছু ধরা পড়েনি।” সিওলের প্রেসিডেনশিয়াল অফিসের তরফে জানানো হয়েছে, উত্তর কোরিয়ার দিক থেকে বিশেষ কোনও পদক্ষেপ চোখে পড়েনি, তাই এ বিষয়ে আলাদা করে কিছু বলার নেই। তবুও কিম জম উনকে নিয়ে জল্পনায় ইতি পড়ছে না।

[আরও পড়ুন: করোনায় ত্রস্ত আমেরিকা, মাত্র ৩৭ দিনেই ভেন্টিলেটর নির্মাণ করল নাসা]

চলতি মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে প্রকাশ্য আর দেখা যায়নি উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উনকে। তারপর শোনা যায়, তিনি অসুস্থ। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন। অস্ত্রোপচারের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ার খবরও জানতে পারে গোটা বিশ্ব। আর তারপরই গুজব ছড়িয়ে পড়ে, কিম প্রয়াত। আমেরিকাও কিমের শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে শুরু করে। উত্তর কোরিয়ার তরফে অবশ্য কিমের মৃত্যু সংবাদ অস্বীকার করে জানানো হয়, প্রেসিডেন্ট ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছেন। গত সপ্তাহে একটি উপগ্রহ চিত্রে দেখা যায়, কিম এবং তাঁর পরিবারের জন্য যে ব্যক্তিগত ট্রেন রয়েছে, সেটি দাঁড়িয়ে দেশের পূর্ব উপকূলের নির্জন ওনসান শহরে। মনে করা হয়, তিনি সেখানেই রয়েছেন। এরপর আজ উত্তর কোরিয়ার একটি সংবাদপত্র জানিয়েছে, কিম ওনসান শহরের পর্যটন বিকাশে জড়িত কর্মীদের ধন্যবাদ সূচক একটি নোট পাঠিয়েছেন। এতেই কিমকে নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার বক্তব্যের সঙ্গে মিলে যাচ্ছে।

[আরও পড়ুন: করোনা যুদ্ধে জয়, টানাপোড়েন পেরিয়ে কাজে ফিরছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement