২৮ ভাদ্র  ১৪২৬  রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আপনি কি একশো বছর বাঁচতে চান? তাও আবার এক্কেবারে নীরোগ অবস্থায়? তাহলে কিন্তু ভুলেও বিয়ের সিদ্ধান্ত নেবেন না৷ একথা শুনে আপনার মনে হতেই পারে সাত পাকে বাঁধা পড়ার সঙ্গে দীর্ঘায়ু হওয়ার কী সম্পর্ক? কিংবা বিবাহিত নারী-পুরুষেরা রেগে যেতেই পারেন৷ কিন্তু বিশ্বাস করুন আমরা না, দীর্ঘায়ু জীবনের গোপন চাবিকাঠি বিয়ে না করা, তা বলছেন মার্কিন বৃদ্ধা৷ যিনি সদ্যই ১০৭ বছরের জন্মদিন পালন করেছেন মহা ধূমধামে, নেচেগেয়ে, খানাপিনা করে৷

[আরও পড়ুন: ভারতকে চাপে ফেলতে কাশ্মীর ইস্যুতে ট্রাম্পের ‘মধ্যস্থতা’র প্রস্তাবকে সমর্থন ইমরানের]

১৯১২ সালে ম্যানহাটনে জন্মান লুইজ সিগনোর৷ শৈশব কেটেছে সেখানেই৷ চোদ্দ বছর বয়সে স্থান বদল৷ তারপর থেকে পাকাপাকিভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা হয়ে যান তিনি৷ ছোটবেলায় ঘুম থেকে উঠে শরীরচর্চা করতেন লুইজ৷ নাচের ক্লাসে যাওয়াও তাঁর বরাবরের অভ্যাস৷ কখনও কোনওদিন নিজের কাজ করতে অন্য কারও সাহায্য নেননি৷ এভাবেই জীবনের ১০৭টি বসন্ত পার করেছেন লুইজ৷ আজও বদলায়নি তা৷

১০৭ বছরের জন্মদিনে নিজেই বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন ওই বৃদ্ধা৷ এক রেস্তরাঁয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে বৃদ্ধার আত্মীয়, বন্ধুরা উপস্থিত ছিলেন৷ গোলাপি রংয়ের পোশাক এবং মুক্তোর হারে সেজে দিব্যি হাসি হাসি মুখে কেক কাটেন৷ 

Old-Woman

বৃদ্ধার বয়স শুনেই চোখ কপালে উঠছে প্রায় সকলের৷ কীভাবে এমন দীর্ঘায়ু হলেন ওই বৃদ্ধা? তিনি বলেন, ‘‘আমি বিয়ে করিনি৷ আমি মনে করি এটাই আমার ১০৭ বছর বয়সের গোপন চাবিকাঠি৷ এছাড়াও আমি সবসময় স্বাস্থ্যকর খাবার খাই৷ রোজ শরীরচর্চাও করি৷ আমি এখনও প্রতিদিন নাচের ক্লাসে যাই৷ দুপুরে খাওয়াদাওয়ার পরেও আমিও অল্প ব্যায়াম করি৷’’

Old-Woman

[আরও পড়ুন: ‘ইয়ে দোস্তি…’, গানে মোদিকে টুইটারে বন্ধুত্বের বার্তা ইজরায়েলি দূতাবাসের]

লুইজের পরিজনদের মতে, বয়স বাড়লেও মনের জোর একইরকম রয়েছে শতোর্ধ্ব বৃদ্ধার৷ বর্তমান যুগে যখন হাঁটু, পায়ে ব্যথা কিংবা মধুমেহর মতো শারীরিক সমস্যায় সকলেই জেরবার, তখন ওই বৃদ্ধা প্রকৃত অর্থেই নীরোগ৷ পরিমিত জীবনযাপন হওয়ায় কোনও রোগই তাঁর শরীরে বাসা বাঁধতে পারেনি৷ এখনও পর্যন্ত হেঁটে হেঁটে দিব্যি এদিক সেদিক ঘুরে বেড়ান তিনি৷ নিজের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনাকাটিতে কারও সাহায্য নেন না লুইজ৷ বয়স যে একটা সংখ্যা ছাড়া আর কিছুই নয়, তাই যেন আরও একবার প্রমাণ করলেন শতোর্ধ্ব বৃদ্ধা৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং