৩০ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আগে গ্রামগঞ্জে টোটো বা অটোর রমরমা ছিল না। রিকশা বা ভ্যানে করেই যাতায়াত করত মানুষ। তখন মাঝে মাঝে চোখে পড়ত স্ত্রীর চেহারা ভাল হলে বা বসার জায়গা না পেলে রিকশার পিছন পিছন হেঁটে যাচ্ছে স্বামী। তবে এখন দিনকাল বদলেছে। পরিবর্তন হয়েছেন যানবাহনেরও। কিন্তু, একই রয়েছে গিয়েছে স্ত্রীর অনুগত স্বামীদের ভালবাসার বহর! সম্পর্কের টানাপোড়েনে একান্নবর্তী পরিবার ভেঙে টুকরো টুকরো হয়ে ছোট হয়েছে। কিন্তু, তাতেও কমেনি কোনও কোনও স্বামী-স্ত্রীর প্রেমের জোয়ার। জীবনের জোয়ারভাটা পেরিয়ে আজও অমলিন রয়েছে তাদের ভালবাসা!

[আরও পড়ুন: আমেরিকার শরণাপন্ন হংকংয়ের গণতন্ত্রকামীরা, ওয়াশিংটনকে হুমকি ল্যামের]

এরকমই এক দম্পতির সন্ধান পাওয়া গেল উত্তর আমেরিকার ইন্ডিয়ানা প্রদেশে। একটি বিমানে করে যাওয়ার সময় স্ত্রী ঘুমোচ্ছিলেন। তাই নিজের সিট ছেড়ে দিয়ে ৬ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে রইলেন স্বামী। কোর্টনি লিও জনসন নামে এক টুইটারাট্টি একটি মাইক্রোব্লগিং ওয়েয়সাইটে ওই দম্পতির ছবি পোস্ট করার পরেই ভাইরাল হয়েছে। পাশাপাশি বিষয়টি নিয়ে দুভাগ হয়ে গিয়েছেন নেটিজেনরাও। কেউ এই ঘটনাকে প্রকৃত প্রেমের উদাহরণ বললেও কেউ আবার সমালোচনা করেছেন মহিলাটির।

অজ্ঞাত পরিচয়ের ওই দম্পতির ছবি পোস্ট করে কোর্টনি লিও জনসন লিখেছেন, ‘স্ত্রী যাতে নিশ্চিন্ত ঘুমোতে পারেন তাই ওই ব্যক্তি টানা ৬ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে ছিলেন। এটাই হল সত্যিকারের ভালবাসা।’ আর তাঁর এই ভিডিওটি পোস্ট করার পরেই দুভাগ হয়ে গিয়েছে নেটিজেনদের দুনিয়া। কেউ কেউ জনসনের ‘ভালবাসা’ শব্দটির ব্যবহার নিয়ে আপত্তি তুলেছেন। তাঁদের মতে, নিজের ঘুমের জন্য স্বামীকে ৬ ঘণ্টা দাঁড় করিয়ে রাখা ভালবাসা নয় স্বার্থপরতার উদাহরণ।

[আরও পড়ুন: আচমকা ভোলবদল, যুদ্ধ নয় আলোচনা চাইছে পাকিস্তান ]

কেউ উল্লেখ করেছেন, ওই মহিলাটি স্বামীকে সিটে বসিয়ে তাঁর কোলে মাথা রেখে আরামেই ঘুমোতে পারতেন। তাহলে দু’জনেরই সুবিধা হত। কিন্তু, তা না করে শুধু নিজের স্বার্থ দেখেছেন ওই মহিলা। তাঁর এই বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়েছে অনেকেই। আবার নেটিজেনদের অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন ছবিটির সত্যতা নিয়ে। তাঁদের কথায়, চলন্ত বিমানে অতক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকা কী সম্ভব? বিমান সংস্থার কর্মীরা কি এটা করতে দেবেন?

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং