২৮ ভাদ্র  ১৪২৬  রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপের মতো সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলির বিরুদ্ধে একাধিকবার উঠেছে তথ্য পাচারের অভিযোগ৷ যা নিয়ে তোলপাড় হয়েছে গোটা বিশ্ব৷ অভিযোগ মেটাতে বিভিন্ন ব্যবস্থাও গ্রহণ করেছে সংস্থাগুলি৷ তথ্যের বেআইনি ব্যবহার রুখতে এবার আরও কড়া পদক্ষেপ নিল টুইটার৷ সম্প্রতি প্রকাশিত তথ্য একটি বলছে, গত দু’মাসে প্রায় ৭ কোটি জাল অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছে মাইক্রো ব্লগিং সাইটটি৷ এই অ্যাকাউন্ট গুলির বেশির ভাগই ছিল অত্যন্ত সন্দেহভাজন বা ইনঅ্যাক্টিভ৷

[দিল্লির উদ্বেগ বাড়িয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর মালদ্বীপের]

জানা গিয়েছে, এই জাল অ্যাকাউন্টগুলির বিষয়ে টুইটারকে অনেদিন ধরেই অভিযোগ জানিয়ে আসছিল মার্কিন প্রশাসন৷ কেবল আবেদন করাই নয়, শেষের দিকে কার্যত টুইটারের উপর চাপ সৃষ্টি করছিল আমেরিকা৷ কারণ, এই জাল অ্যাকাউন্টগুলির মাধ্যমেই সমগ্র বিশ্বে পাচার হয়ে যাচ্ছিল বহু গ্রাহকের গোপন তথ্য৷ যা ব্যবহার করা হচ্ছিল বিভিন্ন বেআইনি কাজে৷ পাশাপাশি বেহাত হয়ে যাচ্ছিল অনেকের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর, বিভিন্ন পাসওয়ার্ড৷ ফলে, চাপ পড়তেই বিষয়টিকে তৎপরতার সঙ্গে দেখতে শুরু করে টুইটার৷

[রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাঙ্ক, আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা এডিবির]

মার্কিন সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, তাদের টুইটার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, গত অক্টোবর থেকে প্রচণ্ড পরিমাণে বেড়ে গিয়েছে এই জাল অ্যাকাউন্টের সংখ্যা৷ অন্যান্য সময়ের চেয়ে বৃদ্ধির হার বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ৷ সংস্থাটির দাবি, বিশ্বের সবচেয়ে বড় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট হওয়ায় ফেক অ্যাকাউন্ট গুলিকে খুঁজে, তা নষ্ট করতে কিছুটা সময় লাগছিল তাদের৷ ফলে গত দু’মাস অর্থাৎ মে ও জুন ধরে লাগাতার জাল অ্যাকাউন্ট বন্ধের কাজ করেছেন তাঁরা৷ প্রত্যেকদিন প্রায় এক মিলিয়ন করে জাল অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা হয়েছে৷ পাশাপাশি, তথ্য পাচার রুখতে, গত মাসেই বেশকিছু নয়া ফিচারও নিয়ে এসেছে টুইটার কর্তৃপক্ষ৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং