BREAKING NEWS

৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৪ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পূর্ব আফ্রিকার মোজাম্বিকে ‘আল্লাহু আকবর’ বলে ৫০ জনের শিরচ্ছেদ করল ISIS জঙ্গিরা

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: November 10, 2020 1:25 pm|    Updated: November 10, 2020 2:20 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ধর্মের সঙ্গে সন্ত্রাসবাদের কোনও যোগ না থাকলেও ফের ‘আল্লাহু আকবর’ বলে ৫০ জনের বেশি মানুষের শিরচ্ছেদ করল আইএসআইএস জঙ্গিরা। নৃশংস এই ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব আফ্রিকার দেশ মোজাম্বিক (Mozambique) -এর উত্তর প্রান্তে অবস্থিত কাবো ডেলগাডো প্রদেশে। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে জঙ্গিদের উপযুক্ত শাস্তি দেওয়ার অঙ্গীকার করেছে মোজাম্বিকের প্রশাসন।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাত আচমকা কাবো ডেলগাডো (Cabo Delgado) প্রদেশের নাঞ্জাবা গ্রামে আল্লাহু আকবর ধ্বনি দিতে দিতে হামলা চালায় একদল আইএসআইএস (ISIS) জঙ্গি। তারপর গ্রামবাসীদের ঘর থেকে টেনে বের করে এলোপাথাড়ি গুলি ছুঁড়তে থাকে। এর জেরে সেখানে বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়। দুজনের শিরচ্ছেদ করার পাশাপাশি প্রচুর মহিলাকে অপহরণও করে জঙ্গিরা। অন্যদিকে আরও একদল জঙ্গি হামলা চালায় ওই প্রদেশেরই মুয়াতিদে গ্রামে। সেখানকার বাসিন্দাদের ঘর থেকে টেনে গ্রামের একটি ফুটবল মাঠে নিয়ে যাওয়া হয়। অনেকে পালানোর চেষ্টা করলেও শেষ রক্ষা হয়নি।

[আরও পড়ুন: অধিকৃত কাশ্মীরকে জঙ্গি শিবির বানিয়েছে পাকিস্তান, বিচার চেয়ে জো বিডেনের দ্বারস্থ বালোচ নেতা]

গ্রামবাসীদের ফুটবল মাঠে নিয়ে যাওয়ার পর সেখানে একে একে ৫০ জনের বেশি মানুষের শিরচ্ছেদ করে জঙ্গিরা। তারপর টানা দুদিন ধরে তাঁদের মৃতদেহগুলি ধারালো অস্ত্র দিয়ে টুকরো টুকরো করে গ্রামের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে দেয় বলে অভিযোগ। এই গ্রাম থেকেও অনেক মহিলাকে অপহরণ করা হয় বলে প্রশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দারা বলছেন, ২০১৭ সালের পর এতবড় হত্যাকাণ্ড আর ঘটেনি। আসলে ওই গ্রামবাসীদের আইএসআইএস জঙ্গিরা তাদের সংগঠনে যোগ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। কিন্তু, কেউ তাতে রাজি হয়নি। এর জেরেই নির্বিচারে গণহত্যা চালিয়েছে তারা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১৭ সাল থেকে এখনও পর্যন্ত মোজাম্বিকে দু’হাজার মানুষের শিরচ্ছেদ করেছে আইএসআইএস জঙ্গিরা। তাদের হামলার ফলে ঘরছাড়া হয়েছেন চার লক্ষের বেশি মানুষ।

[আরও পড়ুন: করোনা মহামারীর কারণে হতে পারে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ, সতর্কবার্তা ব্রিটিশ সেনাপ্রধানের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement