২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৮ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

দায়িত্বশীল মিস ইংল্যান্ড, করোনা পরিস্থিতিতে চিকিৎসার দায়িত্বে ফিরলেন বঙ্গকন্যা

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: April 7, 2020 1:45 pm|    Updated: April 7, 2020 1:45 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: COVID-19-এর জেরে গোটা বিশ্বে পরিস্থিতি ক্রমশ জটিল হচ্ছে। এই মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে গিয়ে একাধিক দেশেরে স্বাস্থ্য পরিকাঠামোকে এখন বেগ পেতে হচ্ছে। বিনিদ্র রজনী কাটাচ্ছেন জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত কর্মীরা। এমন পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়েই দশের স্বার্থে করোনা মোকাবিলায় ফের চিকিৎসকের দায়িত্বে ফিরলেন ‘মিস ইংল্যান্ড ২০১৯’ ভাষা মুখোপাধ্যায়।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ভাষা আদতে বাঙালি। গতবছর মিস ইংল্যান্ড প্রতিযোগিতায় সেরার শিরোপা জিতে মাত্র ২৪ বছর বয়সেই এই বঙ্গতনয়া চিকিৎসা পেশা থেকে দূরে সরে গিয়েছিলেন। কিন্তু এই সংকটজনক পরিস্থিতিতে মানবতার খাতিরে নিজের কর্তব্যকে ভুলে যাননি। তাই তড়িঘড়ি যোগ দিলেন তাঁর পুরনো পেশায়। ফিরে গেলেন প্রাক্তন কর্মস্থলে।

মার্চের গোড়ার দিকে কভেন্ট্রি মার্সিয়া লায়েন্স ক্লাবের আমন্ত্রণে ৪ সপ্তাহের জন্য ভারতে এসেছিলেন। বেশ কিছু স্কুলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা নিয়ে সচেতনতা প্রচার চালান ভাষা। পাশাপাশি বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুদের নিয়েও কাজ করেন। ইতিমধ্যেই ব্রিটেনে করোনা পরিস্থিতি মারাত্মক আকার ধারণ করে। ভাষা তাঁর প্রাক্তন সহকর্মীদের কাছ থেকে জানতে পারেন কতটা কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হচ্ছেন তাঁরা। কীভাবে চিকিৎসা ব্যবস্থা চলছে ওদেশে। এরপরই বোস্টনের পিলগ্রিম হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেন ভাষা মুখোপাধ্যায়। যেখানে তিনি আগে জুনিয়র চিকিৎসক হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন। ব্রিটিশ হাইকমিশনের সঙ্গে যোগাযোগ করার পর তিনি জার্মানি হয়ে ব্রিটেনে ফেরেন। এরপর নিয়ম অনুযায়ী ১৪ দিন সেলফ আইসোলেশনে থাকতে হয় তাঁকে। সম্প্রতি তাঁর আইসোলেশন পর্ব শেষ হলে সোমবার পিলগ্রিম হাসপাতালে চিকিৎসার কাজে যোগ দেন বঙ্গকন্যা ভাষা মুখোপাধ্যায়।

[আরও পড়ুন: ইংল্যান্ডে মৃত ছেলে, শেষ দেখা নিয়েও সংশয়ে লকডাউনে আটকে পড়া বাবা-মা]

এপ্রসঙ্গে ভাষা মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, এই কঠিন পরিস্থিতিতে বাড়ি ফিরেই প্রথমে চিকিৎসার কাজে যোগ দিতে চেয়েছিলেন তিনি। কারণ তাঁর কথায়, “এই ডিগ্রি আমার কীসের জন্য! মানুষের পাশে দাঁড়ানোর এর থেকে আর ভাল সময় কি-ই বা হতে পারে।”   

কলকাতায় জন্ম হলেও ৯ বছর বয়সে পরিবারের সঙ্গে ইংল্যান্ডে চলে যান ভাষা। সেখানেই বড় হয়ে ওঠা। পিলগ্রিম হাসপাতালে এখন তাঁর নিঃশ্বাস ফেলার সময়টুকুও নেই। গ্ল্যামারাস জীবন ছেড়ে বিপদের মুহূর্তে যেভাবে করোনা আক্রান্তদের সেবায় নিয়োজিত হয়েছেন ভাষা মুখোপাধ্যায় (Bhasha Mukherjee) , তা আবার প্রমাণ করে দিল যে সমাজে কিছু মানুষের মধ্যে এখনও বেঁচে রয়েছে মনুষ্যত্ব।

[আরও পড়ুন: এবার করোনার গ্রাসে ‘গগনযান’, রাশিয়ায় বন্ধ ভারতীয় পাইলটদের প্রশিক্ষণ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement