BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শনিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফ্রান্সের মানুষকে খুন করার অধিকার রয়েছে মুসলিমদের, বিস্ফোরক মাহাথির মহম্মদ

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: October 29, 2020 9:15 pm|    Updated: October 29, 2020 10:41 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের বক্তব্য নিয়ে বিশ্বজুড়ে তুলকালাম চলছে। ঠিক এই সময়েই ফ্রান্সের লক্ষ লক্ষ মানুষের প্রতি রেগে ওঠার এবং তাঁদের খুন করার অধিকার মুসলিমদের আছে বলে মন্তব্য করলেন মালয়েশিয়ার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মহম্মদ।

বৃহস্পতিবার একাধিক টুইট করে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ (Emmanuel Macron)’র তীব্র সমালোচনা করেন মাহাথির মহম্মদ (Mahathir Mohamad)। একটি টুইটে তিনি লেখেন, ম্যাক্রোঁর আচরণ দেখে মনে হচ্ছে না তিনি একজন সভ্য মানুষ। একজন স্কুল শিক্ষককে খুন করার জন্য যেভাবে তিনি ইসলাম ধর্ম ও মুসলিমদের দায়ী করেছেন তা পক্ষপাতদুষ্ট মনোভাবেরই পরিচয়। অতীতেও উপনিবেশ তৈরির সময় ফ্রান্সের লোকেরা লক্ষ লক্ষ মানুষকে নির্বিচারে হত্যা করেছে যার মধ্যে বেশিরভাগই মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ ছিলেন না। তাই ফ্রান্সের লোকদের উপর রেগে যাওয়ার বা তাঁদের হত্যা করার অধিকার রয়েছে মুসলিমদের।

[আরও পড়ুন: ইসলামাবাদে হিন্দু মন্দির তৈরি অনুমতি দিল পাকিস্তানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় সংস্থা ]

অন্য একটি টুইটে তিনি আরও উল্লেখ করেন, মুসলিমরা (Muslims) ‘চোখের বদলে চোখ’ নীতিতে বিশ্বাস করেন না। তাই ফ্রান্সের মানুষের প্রতি এখনও কোনও প্রতিশোধ নেওয়া হয়নি। ফ্রান্সেরও উচিত তাদের দেশের নাগরিকদের অন্য ধর্মের মানুষের অনুভূতিকে সম্মান দিতে শেখানো। অন্যদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে মর্যাদা দেওয়া। অন্যদের কীভাবে সম্মান জানাচ্ছে তা দেখেই বোঝা যায় একজন মানুষ কতটা সভ্য হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, মালয়েশিয়ার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী যখন টুইটের মাধ্যমে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ও তাদের নাগরিকদের আক্রমণ করছে তখনই ফ্রান্সের দুই জায়গাতে জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটে। নিস শহরের নোতরদাম গির্জার কাছে এক মহিলা-সহ পাঁচজনকে ছুরি মেরে খুন করে এক জঙ্গি। আর অন্য একটি শহরে হামলার আগেই এক বন্দুকবাজকে খতম করেন ফ্রান্সের পুলিশকর্মীরা। এর পাশাপাশি আজ সৌদি আরবের ফ্রান্স দূতাবাসের সামনেও হামলার ঘটনা ঘটেছে।

[আরও পড়ুন: ‘ঘরে ঢুকে ভারতকে মেরেছি’, পুলওয়ামা হামলা নিয়ে মন্তব্য পাকিস্তানের মন্ত্রীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement