BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে শ্রীলঙ্কায় ফের জোড়া বিস্ফোরণ, জারি কারফিউ

Published by: Sayani Sen |    Posted: April 21, 2019 3:44 pm|    Updated: April 21, 2019 5:02 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ধারাবাহিক বিস্ফোরণে শ্রীলঙ্কায় মৃত্যুমিছিল৷ রবিবার সকাল পৌনে ন’টা নাগাদ তিনটি গির্জা এবং তিনটি হোটেল মিলিয়ে মোট ছবার বিস্ফোরণ হয়৷ এই ঘটনায় প্রাণহানি হয়েছে ১৫৬ জনের৷ আতঙ্কের রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও শ্রীলঙ্কার দু’টি জায়গায় শক্তিশালী বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে৷ ইস্টার সানডের দুপুরের এই ঘটনায় আরও দু’জনের মৃত্যু হয়েছে৷ এখনও পর্যন্ত কেউই এই ঘটনার দায় স্বীকার করেনি৷

[আরও পড়ুন: চামড়াহীন শরীর নিয়ে জন্ম, বিরল রোগাক্রান্ত শিশুকে বাঁচানোর চ্যালেঞ্জ চিকিৎসকদের]

সাধারণত শ্রীলঙ্কায় অধিকাংশ বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদেরই বাস৷ তবু ইস্টার সানডে হওয়ায় চার্চগুলিতে এদিন ছিল সাধারণ মানুষের ভিড়ে ঠাসা৷ রবিবার সকাল পৌনে ন’টা নাগাদ তখন ওই চার্চে চলছিল প্রার্থনা৷ সেই সময় প্রথমে কলম্বোর সেন্ট অ্যান্টোনিও চার্চ শক্তিশালী বিস্ফোরণের শব্দে কেঁপে ওঠে৷ উড়ে যায় গির্জার ছাদ৷ কিছু বুঝে ওঠার আগেই একে একে চার্চ ও হোটেল মিলিয়ে মোট পাঁচটি জায়গায় বিস্ফোরণ হয়৷ ওই ঘটনায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা৷ এখনও পর্যন্ত মোট ১৫৬ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ তাঁদের মধ্যে ৩৫ জন বিদেশিও রয়েছেন৷ বিস্ফোরণের পরই গোটা শ্রীলঙ্কাজুড়েই হাই অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে৷ উদ্ধারকাজে নামানো হয় সেনা৷ জরুরি বৈঠকে বসেন শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিংঘে৷ প্রথমে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়৷ প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাতে কারফিউ জারির পক্ষপাতী ছিলেন৷ তবে পরিস্থিতি বিবেচনা করে আপাতত অনির্দিষ্টকালের জন্য কারফিউ জারি করা হয়েছে৷  টুইটে তিনি জানান, এই ধরনের হামলা অনভিপ্রেত এবং কাপুরুষোচিত৷ নিরাপত্তা আরও আঁটসাঁট করা হচ্ছে বলেও টুইটে উল্লেখ করেন তিনি৷

[আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কার গির্জা ও হোটেলে ধারাবাহিক বিস্ফোরণ, ক্রমশই বাড়ছে মৃতের সংখ্যা]

জখমদের উদ্ধারকাজ তখনও শেষ হয়নি৷ তারই মাঝে রবিবার দুপুরে আবারও জোড়া বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে শ্রীলঙ্কা৷ তাতেই এখনও পর্যন্ত দু’জন মারা গিয়েছেন৷ দেশের নিরাপত্তার স্বার্থে ইতিমধ্যেই শ্রীলঙ্কায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে৷ ঘটনার তীব্র নিন্দা করে শ্রীলঙ্কার তামিল সম্প্রদায়ের পাশে দাঁড়িয়েছেন তামিলনাডুর উপমুখ্যমন্ত্রী ও পন্নিরসেলভম৷

এদিকে, এই বিস্ফোরণে এখনও পর্যন্ত কোনও ভারতীয়র প্রাণহানি হয়েছে কিনা, তা জানা যায়নি৷ শ্রীলঙ্কায় ভারতীয় দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ৷ টুইট করে সেকথা জানান তিনি৷ পরিস্থিতির উপর নজর রেখেছেন তিনি৷ ইতিমধ্যেই চারটি হেল্পলাইন নম্বরও চালু করা হয়েছে৷ ধারাবাহিকভাবে আটটি জায়গায় বোমা বিস্ফোরণের সঙ্গে কে বা কারা জড়িত, তা এখনও কোনও জঙ্গি সংগঠন স্বীকার করেনি৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement