BREAKING NEWS

১১ শ্রাবণ  ১৪২৮  বুধবার ২৮ জুলাই ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘কাশ্মীর বিবাদ মিটলেই আণবিক অস্ত্রের প্রয়োজন থাকবে না’, মন্তব্য ইমরানের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: June 23, 2021 11:16 am|    Updated: June 23, 2021 11:16 am

No need for nuclear arsenal once Kashmir issue is resolved, says Pakistan PM Imran Khan | Sangbad Pratidin

ইমরান খান

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জন্মলগ্ন থেকেই জম্মু-কাশ্মীর (Jammu & Kashmir) দখল করতে মরিয়া পাকিস্তান। বিগত কয়েক দশকে ভারতের সঙ্গে একাধিক যুদ্ধে জড়িয়ে পরাজিত হয়েছে দেশটি। এহেন পরিস্থিতিতে ফের পরমাণু অস্ত্রের হুমকি শোনা গেল পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের (Imran Khan) মুখে।

[আরও পড়ুন: তালিবানের সঙ্গে ‘চুপিসারে’ বৈঠক ভারতের! কাতারের দাবি ঘিরে তুঙ্গে জল্পনা]

সম্প্রতি এক আন্তর্জাতিক বৈদ্যুতিন সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকারে দেন ইমরান খান। সেখানে আণবিক অস্ত্র নিয়ে করা প্রশ্নের উত্তরে তিনি সাফ জানান, কাশ্মীর সমস্যা সমাধান হলে পরমাণু অস্ত্রের প্রয়োজন মিটে যাবে। সম্প্রতি, Stockholm International Peace Research Institute-এর (SIPRI) প্রকাশিত এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, চলতি বছরের জানুয়ারি পর্যন্ত যে তথ্য পাওয়া গিয়েছে, সেখান থেকে জানা যায় যে বর্তমানে পাকিস্তানর অস্ত্রভাণ্ডারে ১৬৫টি পরমাণু বোমা আছে। এবং দেশটি দ্রুত আরও আণবিক অস্ত্র তৈরি করছে। এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে Axios on HBO-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমি জানি না তারা এই তথ্য কোথা থেকে পেয়েছে। আমাদের আণবিক অস্ত্রভাণ্ডার শুধুমাত্র আত্মরক্ষার স্বার্থে তৈরি করা হয়েছে। আমি যতদূর জানি তা আক্রমণের জন্য নয়। যে দেশের পড়শির (ভারত) আয়তন সাতগুণ বেশি তাদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ অবশ্যই রয়েছে।” তিনি আরও বলেন, “আমেরিকা চাইলে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করতে পারত। কাশ্মীর নিয়ে বিবাদ মিটলেই আর আণবিক অস্ত্রের প্রয়োজন হবে না।”

উল্লেখ্য, জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে গোড়া থেকেই ভারতের অবস্থান স্পষ্ট। আন্তর্জাতিক মঞ্চে নয়াদিল্লি স্পষ্ট জানিয়েছে, কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। এই বিষয়ে বিবাদ দ্বিপাক্ষিক। ফলে তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপ মেনে নেওয়া হবে না। এদিকে, কাশ্মীর ইস্যুকে বিশ্বের দরবারে তুলে আনলেও সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিমদের গণহত্যা নিয়ে নীরব ইমরান। চিন বন্ধুরাষ্ট্র বলেই কি পাকিস্তানের এমন পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ? এই প্রশ্নের উত্তরে পাক প্রধানমন্ত্রী সাফাই, “এক লক্ষেরও বেশি কাশ্মীরিকে খুন করা হয়েছে। কাশ্মীরের সমস্যা উইঘুর সমস্যার থেকে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের কঠিন সময়ে চিন ভাল বন্ধুর মতো পাশে থেকেছে। আমাদের বিপদে উদ্ধার করেছে। তাই চিনকে আমরা সম্মান করি।”

[আরও পড়ুন: ভারতে নয়, যোগের উৎপত্তি হয়েছে নেপাল থেকে! ফের বিতর্কিত মন্তব্য সেদেশের প্রধানমন্ত্রীর]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement