BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শুক্রবার ৪ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘লাদাখ দ্বিপাক্ষিক ইস্যু, তৃতীয় কারও হস্তক্ষেপ বরদাস্ত নয়’, আমেরিকাকে বার্তা চিনের

Published by: Paramita Paul |    Posted: October 28, 2020 10:14 am|    Updated: October 28, 2020 11:35 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘লাদাখ সীমান্ত সমস্যা দ্বিপাক্ষিক ইস্যু। তা নিয়ে কোনও তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করা হবে না।’ এবার লাদাখ (Ladakh) ইস্যুতে আমেরিকাকে কড়া বার্তা দিল চিন। সফরে এসে ভারতের সার্বভৌমত্ব রক্ষার স্বার্থে পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছিলেন মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও (Mike Pompeo)। সেই আশ্বাসকে চিন যে ভাল চোখে দেখছে না, তা স্পষ্টই বুঝিয়ে দিল তারা।

লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা নিয়ে বরাবরই ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে আমেরিকা। সমস্তরকম সাহায্যের আশ্বাসও দিয়েছে। ভারত সফরে এসে ফের একবর সেই কথা মনে করিয়ে দেন মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও। তারপরই তড়িঘড়ি বিবৃতি দিল  চিনা দূতাবাস। 

[আরও পড়ুন : ‘বেজিংয়ের প্রতিবেশীদের মনে অবিশ্বাসের বীজ বুনবেন না’, পম্পেওকে কড়া বার্তা চিনের]

মঙ্গলবার চিনা দূতাবাসের তরফে বিবৃতি জারি করা হয়। তাতে বলা হয়েছে, “সীমান্ত সমস্যা ভারত ও চিনের দ্বিপাক্ষিক বিষয়।  উত্তেজনা প্রশমন করতে দুপক্ষই কূটনৈতিকও সেনাস্তরে আলোচনা চালাচ্ছে। মতপার্থক্য সামাল দেওয়ার মত শক্তি এবং ইচ্ছে দু’দেশেরই আছে। এ বিষয়ে কোনও তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপের কোনও জায়গা নেই।” চিনের আরও অভিযাগ, প্রতিবেশী দেশগুলিকে চিন সম্পর্কে সম্পূর্ণ ভুল বোঝাচ্ছে আমেরিকা। বিশ্বে একাধিপত্য বিস্তার করতেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চিনের ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগ করা হয়েছে। 

গত সোমবার দু’দিনের ভারত সফরে এসেছেন মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও ও মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব মার্ক টি এসপার।  মঙ্গলবার  ভারত সফরের দ্বিতীয় দিনে এমনটাই ঘোষণা করলেন মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও (Mike Pompeo)। এদিন দিল্লিতে ‘ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়াল’ পরিদর্শনের পর মার্কিন বিদেশ সচিব বলেন, “গালওয়ান উপত্যকায় শহিদ হওয়া ভারতীয় সৈনিকদের প্রতি আমি সম্মান জানাচ্ছি। স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার সংঘর্ষে ভারতের পাশে আছে আমেরিকা।”

[আরও পড়ুন : সার্বভৌমত্ব রক্ষায় ভারতের পাশে আমেরিকা, গালওয়ান নিয়ে সাফ বার্তা পম্পেওর]

সাউথ ব্লকে ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালের সঙ্গে বৈঠক করেন পম্পেও ও এসপার। প্রায় ৪০ মিনিটের বৈঠকে বিগত কয়েক মাস ধরে লাদাখ সীমান্তে চিনা আগ্রাসন নিয়ে আলোচনা হয় তাঁদের মধ্যে। তারপর, চিনকে সাফ বার্তা দিয়ে ভারতের পাশে দাঁড়ানোর কোথা ঘোষণা করেন পম্পেও। তারপরই তড়িঘড়ি বিবৃতি দিল চিন। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement