BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৩ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

সবাই পাকিস্তানকে সন্ত্রাসের আঁতুড়ঘর হিসেবেই চেনে, রাষ্ট্রসংঘে দাঁড়িয়ে ফের তোপ ভারতের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: September 22, 2020 12:35 pm|    Updated: September 22, 2020 12:35 pm

An Images

ফাইল ফটো

 

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে সবাই পাকিস্তানকে সন্ত্রাসবাদের আঁতুড়ঘর হিসেবেই চেনে। রাষ্ট্রসংঘে দাঁড়িয়ে পাকিস্তানকে কটাক্ষ করে এই মন্তব্যই করা হল ভারতের তরফে। আন্তর্জাতিক মহলের চোখে ধুলো দিয়ে পাকিস্তান যেভাবে জঙ্গিদের মদত দিচ্ছে তার তীব্র সমালোচনা করল।

সোমবার জেনেভায় আয়োজিত রাষ্ট্রসংঘের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে কাশ্মীর ইস্যুতে আলোচনা করার চেষ্টা করে পাকিস্তান। এর তীব্র বিরোধিতা করে রাষ্ট্রসংঘে (United Nations) নিযুক্ত ভারতের স্থায়ী রাষ্ট্রদূতের তরফে জানানো হয়, ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে বারবার মুখ খুলছে পাকিস্তান। এটা কাম্য নয়। ইসলামাবাদের উচিত নিজের ঘরের দিকে তাকানো। কারণ গোটা বিশ্ব তাদের সন্ত্রাসের আঁতুড়ঘর হিসেবেই চেনে। জঙ্গিদের মদত দিতে গিয়ে সেখানকার সাধারণ মানুষের মানবাধিকারই আজ বিপন্ন।

[আরও পড়ুন: রাষ্ট্রসংঘে ফল না মেলায় ইরানের বিরুদ্ধে ফের নিষেধাজ্ঞা জারি করল ট্রাম্প প্রশাসন]

এপ্রসঙ্গে রাষ্ট্রসংঘে ভারতের স্থায়ী মিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি বিদিশা মৈত্র (Vidisha Maitra) বলেন, ‘পাকিস্তান এমন একটা দেশ যাকে গোটা বিশ্ব সন্ত্রাসবাদ (terrorism) -এর আঁতুড়ঘর হিসেবেই চেনে। যারা প্রতিমুহূর্তে নিজেদের দেশের ভিতরে জঙ্গিদের আশ্রয় ও প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজে ব্যস্ত রয়েছে। এমনকী তারা খতম হলে শহিদের মর্যাদাও দিচ্ছে। উলটো দিকে নিজেদের দেশে থাকা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষকে নির্মূল করার চেষ্টা করছে।’

সোমবার রাষ্ট্রসংঘে বক্তব্য রাখতে গিয়ে কাশ্মীর প্রসঙ্গ উত্থাপন করেন পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি (Shah Mahmood Qureshi)। জানান, জম্মু ও কাশ্মীর এবং প্যালেস্তাইনের বিষয়টি দীর্ঘদিন ধরে অমীমাংসিত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। রাষ্ট্রসংঘের উচিত জম্মু ও কাশ্মীরের মানুষের দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করে তাঁদের স্বাধীনতার অধিকারকে স্বীকৃতি দেওয়া।

পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রীর এই মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করে ভারতের তরফে জানানো হয়, কেন্দ্রশাসিত জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে যে ধরনের ভিত্তিহীন মন্তব্য করা হচ্ছে আমরা তা প্রত্যাখান করছি। এই অঞ্চল ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ।

[আরও পড়ুন: রাষ্ট্রপতি আল সিসির পদত্যাগের দাবিতে উত্তাল মিশর, পোড়ানো হল পুলিশের গাড়ি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement