BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভারতের সমালোচনা করে ফের কাশ্মীরি জঙ্গিদের পাশে থাকার বার্তা পাকিস্তানের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 20, 2020 5:50 pm|    Updated: July 20, 2020 5:52 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কথায় আছে, ঢেঁকি স্বর্গে গেলেও ধান ভাঙে। পাকিস্তানের ক্ষেত্রে এই প্রবাদটা সবসময়ই সত্যি। কারণ, সারা পৃথিবী যখন করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ব্যস্ত তখনও জঙ্গিদের মদত দেওয়া থেকে শুরু করে কাশ্মীর সীমান্তে সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন, সবই করছে পাকিস্তান (Pakistan)। রবিবার পাকিস্তান দিবসের দিনও কাশ্মীরের জেহাদিদের পাশে দাঁড়িয়ে সওয়াল করতে দেখা গেল শাসক ও বিরোধী সবাইকেই। প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ( Imran Khan)থেকে শুরু করে বিরোধী রাজনৈতিক দলের সব নেতারাই কাশ্মীরের জঙ্গি কার্ষকলাপকে স্বাধীনতার লড়াই বলে উল্লেখ করলেন।

রবিবার ইমরান খান টুইট করেন, ‘কাশ্মীরিদের স্বাধীনতার লড়াইকে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক আইনও স্বীকৃতি দিয়েছে। আমরাও ধারাবাহিকভাবে এই লড়াইয়ে কাশ্মীরিদের পাশে রয়েছি। হিন্দুত্বের ধ্বজাধারী ভারতের সরকার কাশ্মীরের স্বাধীনতার লড়াইকে অন্যায়ভাবে দমন করার চেষ্ট চালাচ্ছে। সেখানকার মানুষের উপর অমানুষিক অত্যাচার করছে। আমরা তার তীব্র নিন্দা করছি। আজ আমরা ইয়ম-ই-ইলহাক-ই-পাকিস্তানের ঐতিহাসক পটভূমিকার কথা স্মরণ করেছি। কাশ্মীরিরা পাকিস্তানে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার জন্য যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তার সম্মানেই এই অনুষ্ঠান পালন করা হয়। সেসময়ের মতো আজও আমরা কাশ্মীরের মানুষের প্রতি আমাদের প্রতিশ্রুতি পালন করে আসছি। আগামীদিনেও তাদের স্বাধীনতার লড়াইয়ের পক্ষেই থাকব।’

[আরও পড়ুন: করোনা আবহে প্রথম, আজ থেকে চিনে খুলে গেল সিনেমা হলের দরজা]

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি টুইট করে কাশ্মীরিদের পাশে থাকার বার্তা দেন রাষ্ট্রপতি ডা. আরিফ আলভিও। তাঁর কথায়, সেই দিন আর বেশি দূরে নয় যখন কাশ্মীরিদের পাকিস্তানে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার স্বপ্ন বাস্তবায়িত হবে। সেখানকার মানুষরা যে আত্মবলিদান দিয়েছে তার ফল মিলবেই।

[আরও পড়ুন: ইতিহাস গড়ল আমিরশাহী, লালগ্রহের আবহাওয়ায় নজর রাখতে উড়ে গেল আরবের প্রথম মঙ্গল যান]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement