BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফের উসকানি পাকিস্তানের, নয়া মানচিত্রে কাশ্মীর-লাদাখ নিজেদের বলে দাবি ইসলামাবাদের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: August 4, 2020 8:20 pm|    Updated: August 4, 2020 8:20 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নেপালের পর ভারতের ভূখণ্ড নিজের বলে দাবি করে ম্যাপ প্রকাশ করল পাকিস্তান (Pakistan)। মঙ্গলবার নয়া রাজনৈতিক মানচিত্রে জম্মু-কাশ্মীর, লাদাখ ও স্যার ক্রিক নিজেদের অংশ হিসেবে দেখিয়েছে ইসলামাবাদ।

[আরও পড়ুন: কুলভূষণ মামলায় নয়া মোড়, এবার আইনজীবী নিয়োগ করতে পারবে ভারত]

এদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার সঙ্গে বৈঠকে বসেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ভারতকে ফের উসকানি দিয়ে সেখানেই নয়া মানচিত্রে সিলমোহর দেন তিনি। এই বিষয়ে ইমরান বলেন, “পাকিস্তানের জনগণ ও সমস্ত বিরোধী দলের সহযোগিতা রয়েছে আমাদের সঙ্গে। জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেওয়ার ভারত সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেই এই নয়া মানচিত্র প্রকাশ করেছি আমরা।” পাকিস্তানের নয়া মানচিত্রে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখকে অবৈধভাবে ভারতের দখলে থাকা এলাকা বলে দেখানো হয়েছে। এছাড়া, গুজরাট সীমান্তে স্যার ক্রিক অঞ্চলটিকেও পাকিস্তানবের অংশ হিসেবে দাবি করা হয়েছে। হাস্যকরভাবে, স্বাধীনতার পূর্বের জুনাগড় রাজ্যটিকেও (বর্তমান গুজরাটের অংশ) নিজেদের বলে দাবি করেছে ইমরান খানের প্রশাসন।

সময়ের পাতা উলটে দেখলে জানা যাবে, স্যার ক্রিক (ভারতের গুজরাট ও পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশের মধ্যেকার জলরাশি) নিয়ে নয়াদিল্লি ও ইসলামাবাদের বিবাদ নতুন কিছু নয়। প্রায় ৯৬ কিলিমিটারের ওই জলরাশি রান অফ কচ্ছ থেকে শুরু হয়ে আরব সাগরে মিলিত হয়েছে। তেল, গ্যাস ও মাছের মতো প্রাকৃতিক সম্পদের দিক থেকে এই অঞ্চলটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। প্রায়ই সেখানে একে অপরের মৎস্যজীবীদের পাকড়াও করে দু’দেশই। বিশ্লেষকদের মতে, ম্যাপ নিয়ে পাকিস্তানের উসকানি নিয়ে বিশেষ মাথা ঘামাবে না নয়াদিল্লি। কারণ ম্যাপ তৈরি করলেও বাস্তবে ভারতীয় সীমানায় আগ্রাসন চালানোর মতো সাহস পাক সেনার নেই। উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই ভারতের ভূখণ্ড নিজেদের বলে দাবি করে মানচিত্র প্রকাশ করেছিল নেপাল (Nepal)। চীনের নির্দেশেই সে দেশের প্রধাননমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলির এই কাজ করেছেন বলে মনে করছে নয়াদিল্লি।

[আরও পড়ুন: বিতর্কিত H-1B ভিসা নির্দেশিকায় সই ট্রাম্পের, বিপাকে পড়লেন বহু ভারতীয় তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement