৪ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আন্তর্জাতিক আদালতে কুলভূষণ যাদবকে নিয়ে পর্যুদস্ত হওয়ার পর  প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য সম্ভবত বদ্ধপরিকর পাকিস্তান। তাই এবার আরও আটঘাট বেধে ময়দানে নামছে তারা। মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক আদালতে পাকিস্তান তাদের জবাব পেশ করবে। পাকিস্তানের একটি টেলিভিশন চ্যানেলে সম্প্রচারিত হয়েছে, পাকিস্তান ভারতের শেষ উত্তরের পরিপ্রেক্ষিতে ৪০০ পাতার প্রত্যুত্তর পেশ করতে চলেছে। এটি পাকিস্তানের দ্বিতীয় প্রতিক্রিয়া।

প্রাক্তন ভারতীয় নেভি কম্যান্ডার কুলভূষণ যাদবকে ২০১৬ সালে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয় পাকিস্তানের মিলিটারি কোর্ট। তাঁকে ভারতীয় গুপ্তচর হিসেবে অভিযুক্ত করে এই সাজা শোনায় আদালত। তাঁর বিরুদ্ধে সন্ত্রাস ছড়ানোর অভিযোগও তোলে পাকিস্তান। যাদবের মৃত্যুদণ্ডের আদেশের পর আন্তর্জাতিক আদালতের দ্বারস্থ হয় ভারত। আন্তর্জাতিক আদলত যাদবের ফাঁসির উপর স্থগিতাদেশ জারি করে। তারপর থেকে মামলাটি আন্তর্জাতিক আদালতে বিচারাধীন।

কুলভূষণ ইস্যুতে পাকিস্তানের জারিজুরি ফাঁস বালোচ নেতার ]

গত বছর ডিসেম্বরে ভারতের ফরেন অফিসার ডিরেক্টর ফরেহা বুগতি পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে ভারতের হয়ে জবাব দেন। এবছর ২৩ জানুয়ারি আদালত ভারত ও পাকিস্তান দুই দেশকেই মামলায় ফের সওয়াল করতে বলে। ১৭ এপ্রিল ভারত আদালতের কাছে তার মতামত জানায়। তারপরই পাকিস্তান ৪০০ পাতার প্রত্যুত্তর তৈরি করে।

ভারত এও অভিযোগ তোলে, ভিয়েনা চুক্তি মানছে না পাকিস্তান। কূলভূষণের মামলায় ভারতকে কনস্যুলার অ্যাকসেস দিচ্ছে না তারা। এর উত্তরে পাকিস্তান বলে ভিয়েনা চুক্তি শুধু বৈধ পর্যটকদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। কোনও গুপ্তচরের ক্ষেত্রে নয়। এমনকী কূলভূষণের পাসপোর্টকেও ভুয়ো বলে ঘোষণা করে তারা।

‘চপ্পল চোর পাকিস্তান’, কুলভূষণ কাণ্ডে ঘুড়ি উড়িয়ে প্রতিবাদ ]

তবে গত ডিসেম্বর মা ও স্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ হয় কুলভূষণের। দেশে ফিরে তাঁরা জানান, কুলভূষণের সঙ্গে তাঁদের সরাসরি কথা বলতে তো দেওয়াই হয়নি। পুরু কাচের বেড়ার এপারে ওপারে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়। কথা হয় স্পিকারে। তাও মারাঠিতে কোনও কথা বলার অনুমতি দেওয়া হয়নি। পাক মুলুকে রীতিমতো হেনস্তার মুখে পড়তে হয় তাঁদের। পোশাক পালটে নগ্ন তল্লাশি নেওয়া হয়। মঙ্গলসূত্র থেকে কপালের টিপ, চুড়ি সবই খুলে নেওয়া হয়। এমনকী কুলভূষণের স্ত্রীর জুতোটিও খুলে নেওয়া হয়।

গত ৩ মার্চ ইরান থেকে বালোচিস্তান আসার পর কুলভূষণ যাদবকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে দাবি করেছে পাকিস্তান। যদিও, ইসলামাবাদের এই দাবিকে সম্পূর্ণ মিথ্যে বলেই পালটা দাবি ভারতের। এই দাবি সমর্থন করেন বালোচ নেতা মামা কাদির। তালিবানের সঙ্গে পাক সেনা ও আইএসআইয়ের আঁতাঁত ফাঁস করে দেন তিনি। তিনি জানান, পাক গুপ্তচর সংস্থার নির্দেশেই ইরানের চাবাহার শহর থেকে অপহরণ করা হয় কুলভূষণকে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং