৩০ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

আইএস হানায় শ্রীলঙ্কার ক্ষতিগ্রস্ত চার্চে মোদি, সন্ত্রাসবাদকে কড়া বার্তা প্রধানমন্ত্রীর

Published by: Tanujit Das |    Posted: June 9, 2019 6:19 pm|    Updated: June 9, 2019 6:19 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শ্রীলঙ্কার ইতিহাসে ভয়ংকরতম জঙ্গি হামলার পর কোনও আন্তর্জাতিক রাষ্ট্রনেতা হিসাবে এই প্রথমবার দ্বীপরাষ্ট্রে পা রাখলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ রবিবার সকালে ধারাবাহিক বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত সেন্ট অ্যান্টনিও চার্চেও প্রার্থনা সারেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী৷ সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে কড়া বার্তা দিয়ে জানান, ‘‘আমি আশাবাদী যে আবারও ঘুরে দাঁড়াবে শ্রীলঙ্কা৷ জঙ্গিদের বর্বরোচিত কার্যকলাপ শ্রীলঙ্কার উন্নয়নের ধারা প্রতিরোধ করতে পারবে না৷’’

[ আরও পড়ুন: চিনের শক্তিবৃদ্ধিতে শঙ্কিত আমেরিকা! ভারতকে সশস্ত্র ড্রোন বিক্রিতে সায় ট্রাম্পের ]

এদিন শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিংহে ও সেদেশের রাষ্ট্রপতি মৈত্রীপালা সিরিসেনার সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ সাক্ষাৎ করেন, বিরোধী দলনেতা তথা শ্রীলঙ্কার প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি রাজাপক্ষের সঙ্গেও৷ এদিন শ্রীলঙ্কায় বসবাসকারী ভারতীয়দের সঙ্গেও দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী৷ জানান, বিশ্বের দরবারে ভারতের অগ্রগতির অন্যতম কারিগর প্রবাসীরা৷ দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ গ্রহণের দিন থেকেই প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলিকে বেশি গুরুত্ব দিতে দেখা গিয়েছিল নরেন্দ্র মোদিকে৷ ওইদিনের অনুষ্ঠানে বিশেষ ভাবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল বিমস্টেক (BIMSTEC) গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলির রাষ্ট্রপ্রধানদের৷

[ আরও পড়ুন: আরও এক আন্তর্জাতিক শিরোপা মোদির মুকুটে, পেলেন মালদ্বীপের সর্বোচ্চ সম্মান ]

এমনকী, দ্বিতীয়বার ইনিংসের শুরুতে প্রথম বিদেশ সফরে থাইল্যান্ডে যান মোদি৷ সেখানে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে সেদেশের সর্বোচ্চ সম্মান ‘রুল অব নিশান ইজ্জুদ্দিন’ প্রদান করে মালদ্বীপের সরকার। দুই দেশের মধ্যে বেশ কয়েকটি মউ স্বাক্ষরিত হয়। ওইদিন মালদ্বীপের সংসদেও বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানেও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সরব হন তিনি৷ বলেন, “গোটা বিশ্বকে একত্রিত হয়ে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়তে হবে। সন্ত্রাসবাদ শুধু কোনও দেশ বা কোনও এলাকার শত্রু নয়, এটা গোটা বিশ্বের শত্রু। রাষ্ট্রের মদতপুষ্ট সন্ত্রাস আরও বিপজ্জনক। আমাদের একত্রিত হয়ে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।” এমনকী মালদ্বীপে একটি মসজিদ গড়ারও প্রতিশ্রুতি দেন মোদি৷ যা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কটাক্ষের মুখেও পড়তে হয় তাঁকে৷ সমালোচনার সুরে নেটিজেনদের একাংশ জানায়, যেখানে এদেশেই গেরুয়াপন্থীদের হাতে ভাঙা পড়ছে মসজিদ৷ সেখানে প্রধানমন্ত্রী মালদ্বীপে মসজিদ নির্মাণের কথা বলছেন৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement