২৩ বৈশাখ  ১৪২৮  শুক্রবার ৭ মে ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘ধর্ষণ’ মন্তব্যে বাড়ছে চাপ, জনসমক্ষে ক্ষমা চাওয়ার দাবিতে ক্রমশই কোণঠাসা ইমরান

Published by: Biswadip Dey |    Posted: April 11, 2021 10:46 am|    Updated: April 11, 2021 10:46 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ক্রমশই চাপ বাড়ছে ইমরান খানের (Imran Khan) উপরে। ধর্ষণ (Rape) নিয়ে করা তাঁর বিতর্কিত মন্তব্যকে ঘিরে পাকিস্তানে (Pakistan) তো বটেই, এমনকী বিশ্বের অন্যত্রও প্রতিবাদে শামিল অনেকেই। ইমরানের দুই প্রাক্তন স্ত্রী জেমাইমা গোল্ডস্মিথ ও রেহাম খান পর্যন্ত কটাক্ষ করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রীকে। সেদেশের মানবাধিকার কর্মীরা ইতিমধ্যেই বিক্ষোভ দেখিয়েছেন ইমরানের বিরুদ্ধে। তাঁদের দাবি, জনসমক্ষে ক্ষমা চাইতে হবে ইমরানকে।

ঠিক কী বলেছিলেন তিনি? পাক দূরদর্শনে লাইভ এক অনুষ্ঠানে দেশে বাড়তে থাকা ধর্ষণ নিয়ে প্রশ্নের উত্তরে ইমরানকে বলতে শোনা গিয়েছে, ”এই ধরনের ঘটনা সেই সমাজেই বেশি ঘটে, যেখানে অশালীনতা বাড়ছে।” ধর্ষণের ঘটনা যে বাড়ছে, তা স্বীকার করে সমস্ত মহিলাদের ঢাকা পোশাক পরার পরামর্শও দেন পাক প্রধানমন্ত্রী। ইমরানের এমন মন্তব্যকে ঘিরে ঘনিয়েছে বিতর্ক। একজন জননেতা তথা রাষ্ট্রনেতার কাছ থেকে এমন মন্তব্য কাম্য নয় বলেই মনে করছে সেদেশের মানবাধিকার কমিশন। ভারতের তারকা ক্রিকেটার রবিচন্দ্রন অশ্বিন কিংবা মার্টিনা নাভ্রাতিলোভার মতো কিংবদন্তি টেনিস খেলোয়াড়ও একহাত নিয়েছেন ইমরানকে। সব মিলিয়ে চাপ ক্রমেই বাড়ছে পাক প্রধানমন্ত্রীর উপরে।

[আরও পড়ুন: চুক্তি ভেঙে আণবিক বোমা তৈরির পথে ইরান! সিঁদুরে মেঘ দেখছে বিশ্ব]

রাস্তায় নামতে দেখা গিয়েছে পাকিস্তানের মানবাধিকার কর্মীদেরও। তাঁদের হাতে থাকা প্ল্যাকার্ড ও ব্যানারে স্পষ্টতই ক্ষমা চাওয়ার আরজি ইমরানকে। তাঁদের দাবি, এমন মন্তব্য ধর্ষকদের আরও ইন্ধন জোগাবে। এক প্রতিবাদীর কথায়, ”কোনও সাধারণ মানুষ যদি এই ধরনের কথা বলতেন তাহলে সেটা আলাদা ব্যাপার হত। কিন্তু একজন প্রধানমন্ত্রী যখন এমন বলেন, তখন তা রীতিমতো ভয়াবহ আকার ধারণ করে। এই ধরনের বিবৃতিকে আমরা এড়িয়ে চলতে পারি না। যে সব মহিলারা কারখানা, অফিস বা মাঠে কাজ করেন, তাঁদের জন্য এই ধরনের মন্তব্য অত্যন্ত বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে।”

ইমরানের প্রাক্তন স্ত্রী জেমাইমা গোল্ডস্মিথও একহাত নিয়েছেন তাঁকে। তবে সেই সঙ্গে আশাপ্রকাশ করেন, এটা হয়তো ভুল উদ্ধৃতি। তিনি লেখেন, ”আমি যে ইমরানকে চিনি সে বলত, পুরুষের চোখে পর্দা থাকুক, মেয়েদের নয়।” অন্যদিকে তাঁর আরেক প্রাক্তন স্ত্রী রেহাম খানের মত, ”ও যত কম কথা বলবে ততই সকলের জন্য ভাল।” আসলে ইমরানের এমন বেফাঁস মন্তব্য নতুন নয়। এর আগেও ওসামা বিন লাদেনকে ‘শহিদ’ বলে বিপাকে পড়তে হয়েছিল তাঁকে।

[আরও পড়ুন: মায়ানমারে জওয়ান হত্যার বদলা! ১৯ জন গণতন্ত্রকামীর মৃত্যু পরোয়ানা জারি সেনার]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement