১ শ্রাবণ  ১৪২৬  বুধবার ১৭ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সামুদ্রিক মাছ পছন্দ করেন? কাঁকড়া, চিংড়ি, অক্টোপাসের স্যুপ কিংবা কারি পছন্দ নিশ্চয়ই? লবস্টারও চেখে দেখেছেন তো? তবে এবার আসুন, এক অন্য ধরনের লবস্টারের সঙ্গে পরিচয় করাই৷ একেবারে বিরল ব্লু লবস্টার৷ হ্যাঁ, ঠিকই পড়লেন৷ বাংলা করলে দাঁড়ায়, নীল লবস্টার৷

[আরও পড়ুন: জোড়া ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল চিন, মৃত কমপক্ষে ১১]

আমেরিকার ম্যাসাচুসেটসের এক রেস্তরাঁ কর্তৃপক্ষ বাক্সভরতি চিংড়ি কিনেছিলেন রান্নার জন্য৷ বাক্স খুলতে অনেকগুলো লবস্টারের ভিড়ে দেখা যায়, ঘন নীল রঙের চিংড়ি৷ প্রাথমিকভাবে তা দেখে চমকে উঠেছিলেন মালিক নিকারসেন৷ ভেবেছিলেন, চিংড়ির পেটিতে ওরকম একটা প্রাণী এল কীভাবে? তারপর রেস্তরাঁর সব কর্মীরা দেখে বুঝতে পারেন, ওটি আর কিছুই নয়৷ একটি লবস্টার, যার গায়ের রং নীল৷ নিকারসেন চিংড়িটিকে রান্নাঘরে চালান না করে আলাদা রেখে দেন৷ পরে রেস্তরাঁয় যাওয়া ক্রেতাদের সেটি দেখান৷ সকলেই দেখে তাজ্জব বনে যান৷

এই খবর পৌঁছায় প্রাণী বিশেষজ্ঞদের কাছে৷ তাঁরা নিকারসেনের আরনল্ড লবস্টার অ্যান্ড ক্লাম বারে গিয়ে নীল লবস্টারটি দেখেন৷ পরীক্ষানিরীক্ষার পর জানা যায়, এটি অত্যন্ত বিরল প্রকৃতির এক সামুদ্রিক প্রাণী৷ জিনগত সমস্যার কারণে ২০ লক্ষ লবস্টারের মধ্যে মাত্র ১টির রং এমন নীল হয়৷ ঘটনাচক্রে ম্যাসাচুসেটসের ওই রেস্তরাঁয় কীভাবে যে এল, তা বুঝতে পারছেন না কেউই৷

[আরও পড়ুন: বালাকোট হামলার জের, পদ খোয়ালেন আইএসআই প্রধান]

 

blue-lobstar-n

রেস্তরাঁ মালিক নিকারসেন বিরল সেই চিংড়ির ছবি তুলে নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোসট করেন৷ জানান নিজেদের অভিজ্ঞতার কথা৷ তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় পাতায়৷ অনেকে চিংড়িটা দেখতে চেয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন৷ আর এসবের জেরে নিকারসেন সিদ্ধান্ত নেন, নীল লবস্টারটিকে তিনি একটি অ্যাকোরিয়ামে দেবেন৷ যাতে আরও বেশি মানুষ বিরল সামুদ্রিক প্রাণীটিকে স্বচক্ষে দেখার সুযোগ পান৷  তিনি জানিয়েছেন, ‘ আমি এই লবস্টারটি সেন্ট লুইস অ্যাকোরিয়ামে দিতে চাই, বিভিন্ন সামুদ্রিক প্রাণী সংরক্ষণে যারা বেশ সুনামের সঙ্গে কাজ করে৷’ 

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং