BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

১৩ বছরের মেয়ের সতীত্ব বিক্রি করতে গিয়ে ধৃত মহিলা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 21, 2018 11:39 am|    Updated: January 21, 2018 11:39 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সন্তান কুসন্তান হতে পারে। কিন্তু মা কি কখনও কুমাতা হতে পারে? হতে পারে। যদি সে আইরিনা গ্লাদকিকের মতো হয়। নিজের ১৩ বছরের মেয়ের সতীত্ব বিক্রি করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়েছে রাশিয়ার এই মহিলা। ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পুতিনের দেশে।

[দমকলকর্মীর হেলমেটের মধ্যে লুকিয়ে বিষধর সাপ, ভাইরাল ভিডিও]

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ৩৫ বছরের ওই মহিলা রাশিয়ার চেলিয়াবিনস্কের বাসিন্দা। এক সময় স্থানীয় সৌন্দর্য প্রতিযোগিতাও জিতেছিল। কিন্তু বর্তমানে তার আর্থিক অবস্থা খুবই খারাপ। কিছুদিন আগেই নিজের এক বন্ধুর কাছ থেকে সে জানতে পারে এই দেহব্যবসার চক্রের কথা। যেখানে মেয়েদের সতীত্ব নিলামে ওঠে। এই বাজারে নাবালিকাদেরও দর ওঠে। টাকার জন্য নিজের ১৩ বছরের কন্যাকে সেখানে নিলামে তোলে ওই মহিলা।

এই চক্রের খোঁজ বহুদিন ধরে রাশিয়ার পুলিশও চালাচ্ছিল। সেই সুবাদেই ১৩ বছরের নাবালিকার নিলামে ওঠার কথা জানতে পারেন গোয়েন্দারা। মহিলার জন্য ফাঁদ পাতা হয়। যে বন্ধুর মাধ্যমে মহিলা নিজের মেয়ের সতীত্ব নিলামে তুলেছিল তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। বলা হয়, একজন ধনী ক্রেতা পাওয়া গিয়েছে। ১৯,১০০ ব্রিটিশ পাউন্ডের বিনিময়ে সে ১৩ বছরের কন্যার সতীত্ব পেতে চায়। এর জন্য মস্কো আসতে হবে।

[৫ বছর পর সন্তান খোয়ানোর বিচার পেলেন তরুণী!]

নিজের সঙ্গী ও মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে মস্কো চলেও আসে ওই মহিলা। তাকে এক নির্দিষ্ট স্থানে আসতে বলা হয়। সেখানে আগে থেকেই ওত পেতেছিলেন পুলিশকর্মীরা। এজেন্টের ছদ্মবেশে ছিলেন এক  গোয়েন্দা। মেয়ের সতীত্বের বিনিময়ে টাকা নিতেই হাতেনাতে ধরা হয় মহিলাকে। প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে পুলিশের জেরার মুখে নিজের দোষ স্বীকার করে নেয় ওই মহিলা। জানায়, আরও এক পুত্রসন্তান রয়েছে তার। দারিদ্রের কারণেই এ কাজ করেছে সে। ১৩ বছরের কন্যাকে সরকারি হোমে রাখা হয়েছে। তার পরিচর্যার জন্য মনোবিদের পরামর্শ নেওয়া হয়েছে।

[মাঝ আকাশে দুই বিমানকর্মীর বিয়ে দিয়ে শিরোনামে পোপ ফ্রান্সিস]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement