১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  সোমবার ৬ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

কলম্বোয় ফিদায়েঁ হামলার আগে কাশ্মীর-কেরলে ভ্রমণ! চাঞ্চল্যকর তথ্য শ্রীলঙ্কার

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: May 4, 2019 8:33 pm|    Updated: May 4, 2019 8:33 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গির্জায় ভয়াবহ আত্মঘাতী হামলা চালানোর আগে কলম্বোর জঙ্গি একাধিক প্রশিক্ষণ নিয়েছিল৷ যার মধ্যে অন্যতম ছিল কাশ্মীর এবং কেরল ভ্রমণ৷ এই দুই জায়গা থেকে সে নিজের যোগাযোগ আরও বাড়াতে চেয়েছিল৷ হামলার সপ্তাহ দুই পর তদন্তের ভিত্তিতে একথা জানিয়েছেন শ্রীলঙ্কার সেনাপ্রধান লেফটেন্যান্ট মহেশ সেনানায়েক৷ তিনি বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন, ‘ওরা ভারতে গিয়েছিল৷ কাশ্মীর, বেঙ্গালুরু এবং কেরলে ঘুরে বেড়িয়েছিল৷ এসব তথ্য আমাদের হাতে এসেছে৷’

[আরও পড়ুন: ‘অন্ধ শত্রুতা’ থেকে ভারতকে রক্তাক্ত করেছে পাকিস্তান, দাবি প্রাক্তন CIA-প্রধানের]

২১ এপ্রিল৷ ইস্টার সানডে কলম্বোর তিনটি গির্জা এবং বিলাসবহুল হোটেলে ৯ জন আত্মঘাতী জঙ্গি হামলা চালায়৷ উৎসবের আবহেই ৩০০ জনের মৃত্যুতে রক্তস্নাত হয়ে ওঠে রাজধানী শহরের মাটি৷ আহতের সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়েছে৷ হামলা চালিয়েছিল ইসলামিক জঙ্গি সংগঠন আইএস মতাদর্শে তৈরি ন্যাশনাল তৌহিদ জামাত নামের একটি স্থানীয় সংগঠন৷ আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার তদন্তে নেমে একের পর চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে৷ যার মধ্যে অন্যতম, কাশ্মীর-কেরল ভ্রমণ৷ কী ধরনের কাজ করতে এদেশে এসেছিল আত্মঘাতী যুবকরা? সেনাপ্রধান জানাচ্ছেন, সে সম্পর্কে নিশ্চিত কোনও তথ্য নেই৷ তবে জঙ্গি প্রশিক্ষণের বিষয়েই সেখানে গিয়েছিল তারা, তা স্পষ্ট৷ সম্ভবত দেশের বাইরে তারা নিজেদের সংগঠন বর্ধিত করতে গিয়েছিল৷ সাম্প্রতিককালে উপমহাদেশের এমন এক জঙ্গি হামলার তদন্তে নেমে অন্তত ১০০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে শ্রীলঙ্কা পুলিশ৷ এনটিজে-কে নিষিদ্ধ করার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে৷

[আরও পড়ুন: রানওয়েতে নামতে গিয়ে দুর্ঘটনা, ১৩৬ জন যাত্রী-সহ নদীতে পড়ল বিমান]

সেনাপ্রধান আরও জানাচ্ছেন, ‘আমরা গোয়েন্দা সূত্রে বেশ কিছু তথ্য পেয়েছি৷ সেসব খতিয়ে দেখছি৷ বিভিন্ন দিকে থেকে বিভিন্ন তথ্যের মধ্যে সমন্বয়ের অভাব দেখা দিচ্ছে৷ আমরা সেই ফাঁক পূরণ করেই তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যেতে চাইছি৷ এই দেশ খুব শান্তিপূর্ণ৷ কখনও কোনও সাম্প্রদায়িক বিভেদ ছিল না৷ আমরা আবার সেই পরিস্থিতি ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছি৷ আমাদের উপর আস্থা রাখুন৷’ তবে আত্মঘাতী জঙ্গিদের ভারত ভ্রমণ নিয়ে নতুন তথ্যে শুরু হয়েছে তদন্ত৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement