৩২ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ১৮ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩২ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ১৮ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বালাকোট আতঙ্ক যেন কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না রাওয়ালপিণ্ডির৷ তাদের ভূখণ্ডে ঢুকে ভারতীয় বায়ুসেনার সন্ত্রাসদমন অভিযান যেন রাতের ঘুম কেড়েছে পাক সেনার৷ আর ঠিক সেই কারণে, বালাকোটে বিমান হামলার পাঁচ মাস পরেও নিরাপত্তার খামতি খুঁজে চলেছেন সে দেশের সেনা আধিকারিকরা৷ অদূর ভবিষ্যতে যদি আরও একটা বালাকোটের মতো অভিযান চালায় ভারত বা দু’দেশের মধ্যে যুদ্ধ পরিস্থিতি তৈরি হয়, তখন কীভাবে পাকিস্তানকে রক্ষা করা যাবে, এখন  সেই উপায়ই হাতড়ে বেড়াচ্ছে রাওয়ালপিণ্ডি৷ সূত্রের খবর এমনই৷

[ আরও পড়ুন: টানা বৃষ্টিতে বিপর্যয়, বন্যা বিধ্বস্ত নেপালে ক্রমেই বাড়ছে মৃতের সংখ্যা ]

জানা গিয়েছে, সম্প্রতি এই বিষয়ে জরুরি বৈঠকে বসেছিলেন পাকিস্তানের সেনা আধিকারিকরা৷ বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, ভারত-পাক সীমান্তে অতি স্পর্শকাতর এলাকাগুলিতে শীঘ্রই ম্যান-পোর্টেবল এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম মোতায়েন করা হবে৷ যার সাহায্যে একদিকে যেমন সহজেই শত্রুকে চিহ্নিত করা যাবে, তেমনই অনেক দূর থেকে অব্যর্থ লক্ষ্যে শত্রুর উপর আঘাত হানা যাবে৷ এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা যেহেতু অনায়াসে মাটি থেকে আকাশে হামলা চালাতে পারে, সেক্ষেত্রে শত্রু যুদ্ধবিমানকেও সহজেই টার্গেট করা যাবে৷ এখানেই শেষ নয়, নিয়ন্ত্রণরেখা জুড়ে উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েনেরও সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাওয়ালপিণ্ডি৷ সজাগ করা হয়েছে বায়ুসেনা বাহিনীকে৷ নিয়ন্ত্রণ রেখার ব়াডারগুলির নজরদারির উপরও জোর দিতে বলা হয়েছে৷

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভয়াবহ জঙ্গি হামলার প্রত্যুত্তরে, ফেব্রুয়ারির ২৬ তারিখ পাকিস্তানের অন্দরে সন্ত্রাসদমন অভিযান চালায় ভারতীয় বায়ুসেনা৷ বিমান হামলায় গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় বালাকোট-সহ আরও কয়েকটি এলাকার জঙ্গি ঘাঁটিগুলি৷ ভারতীয় বায়ুসেনার এই অভিযানের কথা স্বীকার করলেও, জঙ্গি মৃত্যুর কথা এখনও স্বীকার করেনি ইসলামাবাদ ও রাওয়ালপিণ্ডি৷ আন্তর্জাতিক মহলে পাকিস্তান বারবার দাবি করেছে, বালাকোটে কয়েকটি পাইন গাছ ধ্বংস করেছে ভারত এবং মারা গিয়েছে কয়েকটি কাক৷ যদিও একাধিক প্রমাণে দেখা গিয়েছে, বালাকোটের যে মাদ্রাসায় জইশ জঙ্গিরা প্রশিক্ষণ নিচ্ছিল, সেখানে সাফল্যের সঙ্গে হামলা করেছে ভারত৷ এবং অনুমান, এতে মৃত্যু হয়েছে অনেক জঙ্গির৷ এই সত্য মেনে নিয়েই পাকিস্তানের এমন তোড়জোড় বলে মনে করা হচ্ছে৷

[ আরও পড়ুন:  নগদে নয়, প্রযুক্তির আশীর্বাদে অ্যাপেই ভিক্ষা নিচ্ছেন চিনারা ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং