২২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শুক্রবার ৫ জুন ২০২০ 

Advertisement

পাকিস্তান সীমান্তে খতম লাদেনের পুত্র হামজা, ৯/১১-এর বর্ষপূর্তিতে জানালেন ট্রাম্প

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: September 15, 2019 8:52 am|    Updated: September 15, 2019 8:52 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আর কোনও জল্পনা কিংবা ধোঁয়াশা নয়। এবার একদম সত্যি। খতম হয়েছে ওসামা বিন লাদেনের পুত্র হামজা বিন লাদেন। এমনটাই দাবি করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ৯/১১ হামলার ১৮ বছর পর আল কায়দার বর্তমান শীর্ষ নেতাকে মারল ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেশ।

[আরও পড়ুন: সৌদি আরবের ২টি তেল কারখানায় ড্রোন হামলা, সন্দেহের তির ইরানের দিকে]

শনিবার টুইন টাওয়ারে হামলার বর্ষপূর্তির দিন ট্রাম্প জানিয়েছেন, লাদেনের পুত্রকে আমেরিকাই খতম করেছে। যদিও কবে মারা হয়েছে, সে বিষয়ে স্পষ্ট করেননি তিনি। এপ্রসঙ্গে বলেন, ‘ওসামা বিন লাদেনের পুত্র এবং আল কায়েদার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হামজা বিন লাদেন আফগানিস্তান-পাকিস্তান অঞ্চলে আমেরিকার সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে মারা গিয়েছে।’ একই সঙ্গে তিনি যোগ করেছেন, ‘হামজা বিন লাদেনের মৃত্যু আল কায়দাকে শুধুমাত্র নেতৃত্বের ক্ষমতার অভাব বোধ করাবে তাই নয়, তার সঙ্গে গোষ্ঠীটির কার্যক্ষমতাও কমবে।’

লাদেন-পুত্রের মৃত্যুকে সন্ত্রাসবাদী মোকাবিলায় বড় ধরনের সাফল্য বলে মনে করছে মার্কিন প্রশাসন। যদিও আল কায়দার তরফে এই মৃত্যু খবর নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। এই ঘটনাকে বিশ্বের দরবারে ট্রাম্পের বড় কূটনৈতিক জয় বলেই মনে করেছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মহল। এই পরিস্থিতিতে আমেরিকার নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে। কোনওরকম সন্ত্রাসবাদী হামলা না হয়, সেজন্য নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

[আরও পড়ুন: সীমান্তে সেনার দেহ উদ্ধার করতে ভারতের কাছে আত্মসমর্পণ পাকিস্তানের, ভাইরাল ভিডিও]

প্রসঙ্গত, ৯/১১ হামলার পর থেকেই সেপ্টেম্বর মাসে স্বাভাবিকভাবে নিরাপত্তায় একটু বেশি জোর দেওয়া হয়। তার উপর হামজার মৃত্যুর প্রকাশিত হওয়ার জেরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলিতে অতিরিক্ত নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েন করা হয়েছে। বাড়ানো হয়েছে নজরদারিও। লাদেন-পুত্রের মাথার দাম এক সময় ১০ লক্ষ ডলার ঘোষণা করেছিল আমেরিকা। ওসামা বিন লাদেনের পরে বয়স্ক নেতাদের প্রভাব ফিকে হতে থাকায় তরুণ মুখ হামজাই হয়ে উঠেছিল আল কায়দার নতুন মুখ। ২০১৫ সাল থেকে ২০১৮ পর্যন্ত নানা একাধিক অডিও বার্তায় শোনা গিয়েছিল, সিরিয়ায় জঙ্গিদের জোট গড়ার কথা বলছে হা‌মজা। তরুণদের ওসামার আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্য পশ্চিমী দেশগুলির রাজধানীতে হামলা চালানোর বার্তা দিত ওসামা-পুত্র।

তবে ওসামা-পুত্র হামজা বিন লাদেনের মৃত্যু সংবাদ নিয়ে গত বছর থেকেই বেজায় টালবাহানা করছে ট্রাম্প প্রশাসন। কখনও দাবি করা হয়েছে, প্রকাশ্যে দেখা গিয়েছে হামজাকে। আবার কখনও মার্কিন গোয়েন্দারা খবর দিয়েছেন, নিহত হয়েছে ওসামার পুত্র। গত মাসেই আমেরিকার প্রতিরক্ষা সচিব মার্ক এসপার বলেছিলেন, ‘আমার কাছে বিস্তারিত তথ্য নেই, তবে এটা নিশ্চিত হামজা বিন লাদেন হত।’ তবে কী ভাবে বা কোথায় হামজার মৃত্যু হয়েছে সে ব্যাপারে মুখ খোলেননি তিনিও। শনিবার তাঁর সেই দাবিকেই মান্যতা দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement