২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ব্রেক্সিট ডামাডোলেই সাধারণ নির্বাচনের দিকে এগোচ্ছে ব্রিটেন৷ হাতে সময় এক মাসেরও কম৷ কনজারভেটিভ ও লেবার দুই দলেরই প্রচার তুঙ্গে৷ এরমধ্যেই নয়া চমক দিল ওয়েলস কনজারভেটিভ পার্টি৷ অ্যালিন ও ডিসাইড আসনে প্রার্থী হিসেবে এক বাঙালি বংশোদ্ভূত সঞ্জয় সেনের নাম ঘোষণা করল তারা।

আগামী মাসেই ব্রিটেনে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে৷ ওয়েলসের ৪০টি আশনেই প্রার্থী দিয়েছে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ ও বিরোধী লেবার পার্টি৷ পাশাপাশি, ৩২টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে নাইজেল ফারাজের ব্রেক্সিট পার্টি৷ তবে ২০১৭ সালে যে সমস্ত আসনে টোরিরা জয়ী হয়েছিলেন, ওই আসনগুলিতে লড়াই করবে না বলে ঠিক করছেন ডানপন্থী নেতা ফারাজ৷ এহেন পরিস্থিতিতে নয়া চমক দিয়ে ওয়েলসের অ্যালিন ও ডিসাইড আসনে প্রার্থী হিসেবে এক বাঙালি বংশোদ্ভূত সঞ্জয় সেনের নাম ঘোষণা করল কনজারভেটিভ পার্টি৷ ব্যক্তিগতভাবে এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন৷ উল্লেখ্য, ব্রেক্সিট নিয়ে চলা চাপানউতোরের মধ্যেই ভাগ্যপরীক্ষা হতে চলেছে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের৷ তবে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির পক্ষে লড়াই সহজ হবে না বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা৷

বর্তমানে লন্ডনের ‘অয়েল অ্যান্ড গ্যাস অথরিটি’ সংস্থার শীর্ষ পদে কর্মরত সঞ্জয় সেন। ২০১৯ সালে বিবিসির ক্যুইজ শো ‘মাস্টারমাইন্ড’-এর সেমিফাইনালেও উঠেছিলেন। তবে রাজনীতির আঙিনায় তাঁর প্রবেশ নতুন নয়৷ এর আগে, ২০১৫ সালের সাধারণ নির্বাচনে অ্যাবেরডিন নর্থ আসন থেকে লড়াই করেছিলেন তিনি৷ তবে সেবারে জয়ী হতে পারেননি সঞ্জয়৷ এবার স্থানীয় ইস্যুগুলিকে পাখির চোখ করে নতুন উদ্যমে প্রচারে নেমে পড়েছেন তিনি। প্রসঙ্গত, ব্রিটেনে ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের রাজনটিইক প্রভাব যথেষ্ট৷ ফলে এবার এবারের নির্বাচনে ভারতীয় বংশোদ্ভূতএমপিদের সংখ্যা বাড়তে পারে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা৷ এদিকে, ভারতীয় জনসংখ্যা বেশি থাকা কেন্দ্রে যথেষ্ট সংখ্যক ভারতীয় বংশোদ্ভূতকে মনোনয়ন না দেওয়ায় লেবার পার্টির তীব্র সমালোচনা করেছেন অনেকেই৷

[আরও পড়ুন: স্বামীরা বন্দি, চিনা পুরুষদের শয্যাসঙ্গিনী হতে বাধ্য করা হচ্ছে মুসলিম মহিলাদের]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং