৭ শ্রাবণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতের মোস্ট ওয়ান্টেড ডন দাউদ ইব্রাহিম পাকিস্তানের আশ্রয়েই রয়েছে। এমনটাই জানিয়েছে আমেরিকা। এবার ভারতের দাবিতে সিলমোহর দিয়ে বিশ্বমঞ্চে ইসলামাবাদকে বড়সড় ধাক্কা দিল ওয়াশিংটন।

[আরও পড়ুন: চিনের বিরুদ্ধে জেহাদ, হংকংয়ে আরও তীব্র সরকার বিরোধী আন্দোলন]

ডি-কোম্পানির হর্তাকর্তা দাউদের ঘনিষ্ঠ সঙ্গী জাবির মোতিওয়ালা প্রত্যর্পণ মামলায় আমেরিকার পক্ষে আইনজীবী জন হার্ডি বলেন, “ডি কোম্পানি নিয়ে তদন্ত করেছে এফবিআই। এর মাথা দাউদ ইব্রাহিম। সে পাকিস্তানেই আস্তানা গেড়ে আছে। ১৯৯৩ সাল থেকে সে এবং তার ভাই ভারত থেকে পলাতক।” এদিকে, ডন দাউদ ইব্রাহিমের শাগরেদ জাবির মোতির প্রত্যার্পণ মামলায় এবার সাক্ষ্য দেবেন ২ পাকিস্তানী। এই মুহূর্তে লন্ডনে বিচার চলছে তার। পাকিস্তান থেকে ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে তারা শুনানিতে যোগ দেবেন বলে জানা গিয়েছে। এই নিয়ে আদালতে আবেদন জানিয়েছিল মোতিওয়ালা। আদালত তার আবেদনে সম্মতি দিয়েছে। উল্লেখ্য, আপাতত মোতিওয়ালার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগ আনেনি আমেরিকা। যদিও হাওয়ালা, মাদক পাচার থেকে শুরু করে একাধিক মামলায় তার প্রত্যর্পণ চাইছে ওয়াশিংটন।

এদিকে, প্রত্যর্পণ ঠেকাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে পাকিস্তান সরকার। পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই-এর নির্দেশে সেজন্য জোরালো লবি করতে মাঠে নেমে পড়েছেন পাকিস্তান বিদেশমন্ত্রকের অফিসার ও কূটনীতিকরা। কারণ, দাউদের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ জাবির মোতিওয়ালার প্রত্যর্পণ ঠেকাতে না পারলে জাবিরকে যদি আমেরিকা হাতে পায় তাহলে অনেক গোপন তথ্য ফাঁস হয়ে যাবে। আইএসআইয়ের মদতেই দাউদের এত বাড়বাড়ন্ত। পাকিস্তানের মদতেই দাউদ বিশ্বজুড়ে মাদক পাচার করে ও দক্ষিণ এশিয়া জুড়ে সন্ত্রাস চালায়। এই ‘ওপেন সিক্রেট’ যাতে প্রমাণিত না হয় এবং সংবাদমাধ্যমের সামনে না আসে সেজন্য মোতিওয়ালার প্রত্যর্পণ রুখে দিতে চেষ্টা চালাচ্ছে পাক লবি। তবে সব মিলিয়ে গোটা ঘটনায় সন্ত্রাসের মদতদাতা হিসেবে পাকিস্তানের আসল চেহারা প্রকাশ পেয়েছে।

[আরও পড়ুন: সিআইএ এজেন্ট ছিলেন স্বৈরাচারী কিমের ভাই নাম, ফাঁস বিস্ফোরক তথ্য]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং