BREAKING NEWS

১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

উত্তর কোরিয়াকে কড়া বার্তা দিতে যুদ্ধবিমান থেকে ব্যাপক বোমাবর্ষণ আমেরিকার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: September 1, 2017 3:20 am|    Updated: October 1, 2019 4:26 pm

US flexes military muscle, deploys bombers, stealth fighters in Korean Peninsula

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আমেরিকা ও দক্ষিণ কোরিয়া যৌথভাবে সীমান্ত বরাবর ব্যাপক বোমাবর্ষণ শুরু করেছে বৃহস্পতিবার থেকে। উত্তর কোরিয়াকে কড়া বার্তা পৌঁছে দিতেই যে এই বোমাবর্ষণ সে কথা বলাই বাহুল্য। চলতি সপ্তাহেও মার্কিন নিষেধাজ্ঞা উড়িয়ে নয়া ব্যালিস্টিক মিসাইল পরীক্ষা করেছে কিম জং উনের প্রতিরক্ষা দপ্তর। আর তাই এবার ইটের জবাবে পাথর ছুড়তে প্রস্তুত আমেরিকাও। মার্কিন সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, অন্তত দু’টি বি ১বি সুপারসনিক বম্বার ও চারটি এফ-৩৬ স্টেলথ ফাইটার জেট লাগাতার দক্ষিণ কোরিয়ার পূর্বে অবস্থিত একটি মিলিটারি ক্ষেত্রে ব্যাপক গোলাবর্ষণ করছে।

Live-drill-2

তবে পেন্টাগন প্রকাশ্যে এই যৌথ মহড়ার কথা স্বীকার করেনি। কিন্তু উত্তর কোরিয়ার সংবাদ সংস্থা কোরিয়ান সেন্ট্রাল এজেন্সি জানিয়েছে, আমেরিকার এই আগ্রাসী পদক্ষেপ সে দেশের পারমাণবিক গবেষণার গতি রুদ্ধ করতে পারবে না। প্রতিবেশী দক্ষিণ কোরিয়া অবশ্য এই যৌথ মহড়া নিয়ে বিশেষ রাখঢাক রাখছে না। সম্প্রতি সিওলকে লক্ষ্য করে একটি মিসাইল ছুড়ে বসেন কিম।


তারপর থেকেই ওয়াশিংটনের সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ রেখে চলছিল সিওল। তারা বিলক্ষণ জানে, উত্তর কোরিয়ার ‘পাগলাটে’ কিমকে শায়েস্তা করতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রত্যক্ষ সমর্থনের দরকার। সিওল স্পষ্ট জানিয়েছে, তাদের চারটি এফ-১৫ যুদ্ধবিমান মার্কিন বায়ুসেনার সঙ্গে যৌথ  মহড়ায় অংশ নিয়েছে। উত্তর কোরিয়ার গোপন সেনাঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেওয়ারই প্রস্তুতি চলছে বলেও হাবেভাবে বুঝিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া।

US-drill

ঠিক কী চলছে এই মুহূর্তে দুই কোরিয়ার সীমান্তে? গুয়ামে মার্কিন বায়ুসেনা ঘাঁটি অ্যান্ডার্সন এয়ার ফোর্স বেস থেকে দু’টি মার্কিন যুদ্ধবিমান বি-১বি উড়ে গিয়েছে কোরিয়ার সীমান্তে। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে জাপানে মার্কিন বায়ুসেনা ঘাঁটি ইওয়াকুনি থেকে উড়ে আসা চারটি  এফ-৩৬ স্টেলথ ফাইটার জেট।


ইউএস প্যাসিফিক কমান্ডের ইঙ্গিত, উত্তর কোরিয়ার সাম্প্রতিকতম ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার বিরুদ্ধে জবাব দিতেই এই ব্যাপক মহড়া চালানো হচ্ছে। ঠারেঠোরে প্রেসিডেন্ট কিমকে বুঝিয়ে দেওয়া যে যুদ্ধ বাধলে সে দেশেরও ক্ষতি কিছু কম হবে না। যদিও পিয়ংইয়ং সাফ জানিয়েছে, মার্কিন যুদ্ধবিমান দেখিয়ে তাদের পরমাণু কর্মসূচি আটকানো যাবে না। তবে এই মুহূর্তে কোরীয় সীমান্তে তিনটি দেশের সেনাই কার্যত রণংদেহী মেজাজে রয়েছে। গত ১০ ঘন্টা ধরে এই মহড়া চলছে।

US-fighter-planwe

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে