১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফাঁস বিমা কেলেঙ্কারি, মার্কিন মুলুকে গ্রেপ্তার ভারতীয় চিকিৎসক দম্পতি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 25, 2018 2:29 pm|    Updated: September 17, 2019 3:15 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  চিকিৎসা সংক্রান্ত জালিয়াতির অভিযোগ উঠল ভারতীয় বংশোদ্ভূত চিকিৎসক দম্পতির বিরুদ্ধে। অভিযোগ, যেনতেন প্রকারেণ নিজেদের তৈরি বিমাসংস্থার উপার্জন বাড়াতে জালিয়াতি করেছেন ওই দম্পতি। স্বাস্থ্যবিমার আওতায় রোগীদের নিয়ে আসাই ছিল মূল উদ্দেশ্য। সেজন্য প্রয়োজন ছাড়াই রোগীদের দিয়ে প্রচুর টেস্ট করানো হয়েছে। টেস্টের খরচ কমাতে বিমা করাতে প্ররোচিত করেছেন ওই দম্পতি। অভিযুক্তরা হলেন ডক্টর আশিস রখিত(৬৫) ও জয়তি রখিত(৫৬)। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওহিয়ো-র ক্লেভল্যান্ডে।

[আইনি রক্ষাকবচে নিশ্চিন্ত জঙ্গি হাফিজ সইদ, উদ্বিগ্ন দিল্লি]

২০১১ থেকে ২০১৮-র মধ্যবর্তী সময়ে আসা রোগীদেরকেই নিশানা বানায় রখিত দম্পতি। মনগড়া বিভিন্ন টেস্ট করাতে নির্দেশ দেওয়া হত রোগীদের। এই টেস্টের মধ্যে ইকোকার্ডিওগ্রাম যেমন ছিল। তেমনই কার্ডিয়াক ক্যাথেটেরিসেশনস, ভেনস আলট্রা সাউন্ডস, অ্যাবডোমিনাল অলট্রা সাউন্ডস, হাড়ের ঘনত্ব সংক্রান্ত স্ক্যানও ছিল। অসুস্থতার সম্ভাবনা নিয়ে চেম্বারে নতুন কেউ এলেই শুরু হয়ে যেত খেলা। রীতিমত ছক কশে তাঁকে রোগাক্রান্ত প্রমাণ করার প্রচেষ্টায় লেগে যেতেন ওই দম্পতি। সামান্য অসুস্থতায় বড় রকমের উপসর্গ খুঁজে পেতেন। তারপরই দিতেন নানারকম শক্ত পরীক্ষার নিদান। কারও পালস রেট মেপেই মুখ গম্ভীর করে ফেলতেন চিকিৎসক। এই দেখেই ঘাবড়ে যেতেন রোগী। শিকার টোপ গিলেছে বুঝতে পারলেই প্রেসক্রিপশনে নানারকম পরীক্ষা নিরিক্ষার বিবরণ লিখে দেওয়া হত। অতিরিক্ত উপার্জনের জন্য নিজেরাই প্যাথলজি ল্যাব চালু করেছিলেন। সঙ্গে বেসরকারি বিমাসংস্থাও চলছিল। রোগী বিপুল অঙ্কের পরীক্ষানীরিক্ষা প্রেসক্রিপশন দেখে মাথায় হাত দিলেই আসরে নামতেন চিকিৎসক দম্পতি। নিজেদের ল্যাব থেকেই পরীক্ষাগুলি করানোর পরামর্শ দিতেন। সেই সঙ্গে  স্বাস্থ্যবিমা করিয়ে নেওয়ার প্রস্তাব দিতেন। ব্যয়বহুল চিকিৎসা খরচ এড়াতেই বিমা করাতে রাজি হয়ে যেতেন রোগীর পরিবার। সেই সঙ্গে একঢিলে দুইপাখি মেরে পকেট ভারী করতেন আশিস ও জয়তি রখিত। এভাবেই চলছিল। আচমকাই গুরুত অসুস্থ এক রোগীকে ভুল পরীক্ষানীরিক্ষার নির্দেশ দেন। প্রতিবার পরীক্ষানীরিক্ষা ভুল করালেও ওষুধ ঠিকঠাকই দিতেন। এবার কোনও কারণে সেখানেই গরমিল হয়ে যায়। মৃত্যু হয় সেই রোগীর। মৃতের পরিবারের তৎপরতায় তদন্তে নামে পুলিশ। বেরিয়ে পড়ে চিকিৎসক দম্পতির কুকীর্তি। পুলিশে অভিযোগ দায়ের হয়। গ্রেপ্তার হন অভিযুক্ত চিকিৎসক দম্পতি।

পুলিশ জানিয়েছে, চেম্বারে আসা রোগীদের বিশ্বাস নিয়ে ছেলেখেলা করেছেন ওই দম্পতি। ভুয়ো বীমা সংস্থার দোহাই দিয়ে টাকা কামিয়ে থেমে থাকেননি। উলটে ভুল পরীক্ষানীরিক্ষা করিয়েও অতিরিক্ত উপার্জন বাড়িয়ে গেছেন নিয়মিত। এমনকী, বেশকিছু নিয়ন্ত্রিত মাদকও প্রেসক্রাইব করেছেন। যেগুলির দরকারও ছিলনা।

[ইলিশ রক্ষায় তৎপর বাংলাদেশ প্রশাসন, নিষিদ্ধ হল শিকার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement