BREAKING NEWS

৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বুধবার ২৫ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মার্কিন রাজনীতিতে রমরমা ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের, বিডেনের টিমের নেতৃত্বে বঙ্গসন্তান

Published by: Paramita Paul |    Posted: November 12, 2020 11:05 am|    Updated: November 12, 2020 11:07 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সদ্য নির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট (US President) জো বিডেনের প্রশাসনিক টিমে ঠাঁই পেলেন ২০ জন ভারতীয় বংশোদ্ভূত। এঁদের মধ্যে তিনজন নেতৃত্বে থাকবেন। আবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কার্যনির্বাহী ডিফেন্স সেক্রেটারি ক্রিস মিলারের চিফ অফ স্টাফ নিযুক্ত হলেন ইন্দো-আমেরিকান কাশ্যপ প্রমোদ পটেল। জানিয়েছে পেন্টাগন। সবমিলিয়ে আমেরিকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে একাধিক ভারতীয়রা স্থান পেয়েছেন।

বিডেন (Joe Biden) কয়েকটি এজেন্সি রিভিউ টিম ঘোষণা করেছেন। ক্ষমতা হস্তান্তরের আগে অর্থাৎ বিডেনের শপথ গ্রহণের আগে সমীক্ষা এবং পর্যবেক্ষণ চালাবে এই টিম। খতিয়ে দেখবে বর্তমান প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরগুলির কাজকর্ম। আগামী দিনে এঁরাই হবেন আমেরিকার জাতীয় ও বিদেশ সংক্রান্ত সরকারি নীতি নির্ধারক। প্রথম দিন থেকে প্রেসিডেন্ট, ভাইস প্রেসিডেন্টকে কাজ চালাতে সাহায্য করবেন। বিডেনের ঘনিষ্ঠমহল বলছে, হস্তান্তরের আগে এত বৈচিত্র‌্যপূর্ণ এজেন্সি রিভিউ টিম আগে হয়নি।

[আরও পড়ুন : নির্বাচন শেষ হওয়ার পর মার্কিনীদের ভোট দেওয়ার আহ্বান ট্রাম্পপুত্রের, নেটদুনিয়ায় হাসির রোল]

যাঁরা দায়িত্ব পেয়েছেন, তাঁদের অন্যতম অরুণ মজুমদার নামের এক বাঙালি। সূত্রের খবর, স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির এই প্রতিভাবান বঙ্গসন্তান বিডেনের ডিপার্টমেন্ট অফ এনার্জির রিভিউ টিমের দায়িত্বে। জাতীয় ড্রাগ কন্ট্রোল নীতির ক্ষেত্রে টিম লিডার রাহুল গুপ্তা। পার্সোনাল ম্যানেজমেন্ট দপ্তরের টিম লিডার কিরণ আহুজা। বিদেশ দপ্তরের রিভিউ টিমে আছেন পুনীত তলোয়ার, জাতীয় নিরাপত্তা এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দপ্তর, দুই টিমে ঠাঁই পেয়েছেন পাভ সিং। নানা বিভাগের দায়িত্বে কাজ করবেন এঁরা। জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে অনেক প্রতিভাবান ব্যক্তি জায়গা পেতে চলেছেন বিডেনের প্রশাসনে। এঁদের মধ্যে রয়েছেন মহিলা, বিশেষভাবে সক্ষম, উদারবাদী, সমকামী, রূপান্তরকামীরাও।

অন্যদিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কার্যনির্বাহী ডিফেন্স সেক্রেটারি ক্রিস মিলারের চিফ অফ স্টাফ নিযুক্ত হয়েছেন ইন্দো-আমেরিকান কাশ্যপ প্রমোদ প্যাটেল। যিনি কাশ প্যাটেল নামে পরিচিত। ডিফেন্স সেক্রেটারি মার্ক এসপারকে দু’দিন আগেই বরখাস্ত করেছেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ন্যাশনাল কাউন্টার টেররিজম সেন্টারের ডিরেক্টর, ক্রিস মিলারকে তিনিই এই পদে কার্যনির্বাহী সচিব হিসেবে নিয়োগ করেন। ক্রিস নিজের চিফ অফ স্টাফ হিসেবে বেছেছেন ৩৯ বছরের কাশ প্যাটেলকে।

[আরও পড়ুন : ২৬/১১ মুম্বই হামলায় জড়িত ১১ জঙ্গি তাদের দেশেই আছে, অবশেষে স্বীকার করল পাকিস্তান]

নিউ ইয়র্কে জন্ম নেওয়া কাশ পটেলের শিকড় গুজরাটে। যদিও তাঁর মা তানজানিয়ার এবং বাবা উগান্ডার। ১৯৭০ সালে প্যাটেল পরিবার কানাডা থেকে যুক্তরাষ্ট্র পাড়ি দেয়। সাতের দশকের শেষদিকে তারা সংসার পাতে নিউ ইয়র্কের কুইন্স অঞ্চলে। রিচমন্ড, ভার্জিনিয়ায় কলেজ যাওয়ার পরে নিউ ইয়র্ক থেকে আইন পাশ করেন কাশ। পরের আট বছর তিনি ফ্লোরিডায় স্টেট পাবলিক ডিফেন্ডার এবং ফেডেরাল পাবলিক ডিফেন্ডার হিসেবে কাজ করেন। তারপর ওয়াশিংটনে যুক্তরাষ্ট্রের বিচারবিভাগের আন্তর্জাতিক টেররিজম প্রসিকিউটর হিসেবে কাজ করেন সাড়ে তিন বছর। বিচারবিভাগের কর্মী থাকার সময়ই সাধারণ নাগরিক হিসেবে তিনি ডিপার্টমেন্ট অফ ডিফেন্সের স্পেশ্যাল অপারেশনস কমান্ডে যোগ দেন। পেন্টাগনে তিনি বিচারবিভাগের আইনজীবী হিসেবে কাজ করেছেন। গুরুত্বপূর্ণ এই ভূমিকায় এক বছর কাজ করার পরে গত বছর জুনে কাশ—কে কাউন্টার—টেররিজমের সিনিয়র কাউন্সেল হিসেবে নিয়োগ করা হয়।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement