১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৬ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

নাটকীয় নির্বাচনে হোয়াইট হাউস দখলের পথে বিডেন, গণনা রুখতে মামলা ট্রাম্প শিবিরের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: November 5, 2020 7:53 am|    Updated: November 5, 2020 8:14 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নাটকীয় নির্বাচন শেষে ২৬৪টি ইলেক্টোরাল ভোট বা আসন জিতে হোয়াইট হাউস দখলের পথে ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রার্থী জো বিডেন (Joe Biden)। অপরদিকে ২১৪টি আসন পেয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদের লড়াইয়ে অনেকটাই পিছিয়ে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে নির্বাচন শেষ হওয়ার পর ২৪ ঘণ্টা কেটে গেলেও ৫৩৮ আসনের ‘ইলেক্টোরাল কলেজ’-এ ম্যাজিক ফিগার ২৭০ ছুঁতে পারেননি কেউই।

[আরও পড়ুন: ‘ট্রাম্প সুপ্রিম কোর্টে গেলে আমরাও তৈরি’, পালটা জবাব বিডেন শিবিরের]

এদিকে, বুধবার আমেরিকার ৫০টি প্রদেশের মধ্যে রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট গড় ধরে রাখতে সক্ষম হন দুই প্রার্থীই। ফলে বেলা বাড়ার সঙ্গে নির্ণায়ক হয়ে ওঠে ফ্লোরিডা, জর্জিয়া, পেনসিলভেনিয়া, নর্থ ক্যারোলিনা, মিশিগান ও উইসকনসিনের মতো সুইং স্টেটগুলি। গতকাল গোটাদিন হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর ভারতীয় সময় মতে বুধবার মাঝরাতে মিশিগান (১৬টি আসন) ও উইসকনসিন (১০টি আসন) দখল করেন বিডেন। এর ফলে দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছেন তিনি। বলে রাখা ভাল, ২০১৬-য় উইসকনসিন এবং মিশিগানে জয়ী হয়েছিলেন ট্রাম্প (Donald Trump)। সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস সূত্রে খবর, পেনসিলভেনিয়া, মিশিগান ও জর্জিয়ায় ভোটপর্বের শেষদিন অর্থাৎ ৩ নভেম্বরের পর আসা মেল-ইন-ব্যালটের গণনা রুখতে মামলা করেছে ট্রাম্প শিবির। নতুন করে ভোটগণনা করার দাবি নিয়ে আদালতে পর্যন্ত ছুটে গিয়েছে তার নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা সংস্থা। অতিমারি-আবহে সংক্রমণের আশঙ্কায় এ বার বিপুল সংখ্যক পোস্টাল ভোট পড়েছে। গণনা কেন্দ্রে ঠিক সময়ের মধ্যে সেই ভোট পৌঁছে দেওয়ার প্রায় দুঃসাধ্য কাজটা চালিয়ে যাচ্ছে ডাক বিভাগ। টিম-ট্রাম্পের অনুমান, পোস্টাল ব্যালট যাঁরা দিয়েছেন, তাঁরা অধিকাংশ ডেমোক্র্যাট। ফলে ট্রাম্প শেষ পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন, যাতে পোস্টাল ভোট গণনা সম্পূর্ণ না হয়। এহেন সময়ে, নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় প্রশ্ন তুলে ট্রাম্প বলেন, “আমরা অনেকটাই এগিয়ে ছিলাম। আচমকা ওরা চারদিক থেকে বিডেনের ভোট পেতে শুরু করল। এটা কেমন করে সম্ভব। আমাদের দেশের খুব বড় ক্ষতি হয়ে গেল।”

এদিকে, জনতার মত ডেমোক্র্যাট পার্টির পক্ষেই যাবে বলে আশাবাদী জো বিডেন। উইলমিংটনে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী কমলা হ্যারিসকে পাশে নিয়ে তিনি বলেন, ‘‘গতকাল আরও একবার প্রমাণ হয়ে গেল যে, গণতন্ত্রই এ দেশের হৃদ্স্পন্দন। গত দু’দশক ধরে ঠিক যেমনটা রয়েছে। মহামারী পরিস্থিতি সত্ত্বেও আমেরিকার ইতিহাসে এ বছরই সবচেয়ে মানুষ ভোট দিয়েছেন।” উল্লেখ্য, সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী বাইডেন এখনও পর্যন্ত জিতেছেন উইসকনসিন, মিশিগান, নিউ মেক্সিকো, নিউ হ্যাম্পশায়ার, নিউইয়র্ক, ম্যাসাচুসেটস, নিউ জার্সি, মেরিল্যান্ড, ভারমন্ট, কানেক্টিকাট, ডেলাওয়ার ও কলোরাডোতে। হাওয়াই, ওয়াশিংটন, ক্যালিফোর্নিয়া এবং ইলিনয়ের মতো রাজ্যেও ডেমোক্র্যাটদের জয় হয়েছে বলে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা এএনআই।
প্রতিপক্ষ রিপাবলিকানরা জিতেছেন ফ্লোরিডা, নর্থ ডাকোটা, সাউথ ডাকোটা, টেক্সাস, লুইজিয়ানা, টেনেসি, সাউথ ক্যারোলিনা, আলাবামা, আরকানসাস, ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া, ওকলাহমা, কেন্টাকি ও ইন্ডিয়ানাতে। এমনটাই জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স। আইওয়ার ৩টি ইলেক্টরাল ভোটও গিয়েছে ট্রাম্পের পক্ষে।

[আরও পড়ুন: ‘আমরা নির্বাচন জিতেছি’, সমর্থকদের কাছে আগাম জয় ঘোষণা করে মামলার হুমকি ট্রাম্পের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement