BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

করোনা রুখতে ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু করল WHO, দু’সপ্তাহের মধ্যেই মিলবে ফল!

Published by: Sulaya Singha |    Posted: July 4, 2020 9:10 am|    Updated: July 5, 2020 2:55 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নোভেল করোনা ভাইরাস (Coronavirus) থেকে মুক্তি পেতে আদা-জল খেয়ে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে চলছে গবেষণা, পরীক্ষা-নিরীক্ষা। একাধিক ওষুধের ট্রায়ালও শুরু হয়ে গিয়েছে। এরই মধ্যে আরও খানিকটা আশার খবর শোনাল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। তারাও ইতিমধ্যেই করোনা বধের জন্য ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু করেছে। শীঘ্রই মিলবে তার ফল।

শুক্রবার WHO-এর ডিরেক্টর-জেনারেল টেড্রোস আধানম ঘেব্রিয়েসুস (Tedros Adhanom Ghebreyesus) জানান, ট্রায়াল সফল হলে তা COVID-19 রোগীদের সুস্থ করে তুলতে যুগান্তকারী ওষুধে পরিণত হতে পারে। তাঁর কথায়, “এই ট্রায়ালে ৩৯টি দেশের প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার রোগীকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, আগামী দু’সপ্তাহের মধ্যেই ফলাফল চলে আসবে।” তিনি আরও বলেন, মোট পাঁচটি ভাগে এই সলিডারিটি ট্রায়াল শুরু হয়েছে। স্ট্যান্ডার্ট কেয়ার, রেমডিভিসির, হাইড্রক্সিক্লরোকুইন, HIV-র ওষুধ লোপিনাভির/রিটোনাভিস এবং ইন্টারফেরনের সঙ্গে যুক্ত লোপিনাভির/রিটোনাভিস- কোভিড রোগীর চিকিৎসায় কে উপকারী হয়ে উঠতে পারে, তার উত্তর খুঁজতেই এদের ট্রায়াল চলছে।

[আরও পড়ুন: শি জিনপিংয়ের আমলেই ভারতের বিরুদ্ধে সবথেকে বেশি আক্রমণাত্মক চিন, বলছে মার্কিন রিপোর্ট]

দিন কয়েক আগেই হাইড্রক্সিক্লরোকুইনের টেস্টিং বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। বলা হয়, যাঁরা ইতিমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁদের এই ওষুধ কোনও কাজে লাগবে না। তবে এবার দেখা হচ্ছে, এটি ভ্যাকসিন কিংবা প্রতিষেধক হিসেবে ব্যবহার করা যায় কি না। অর্থাৎ কোনও বিষয় নিয়ে সহজে হাল ছাড়তে রাজি নয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

তবে WHO-এর এমার্জেন্সি প্রোগ্রামের প্রধান মাইক রায়ান এখনও নিশ্চিতভাবে বলতে পারছেন না, কবে কোভিড-১৯-কে হারানোর ভ্যাকসিন কিংবা ওষুধ তৈরির কাজ সম্পন্ন হবে। আর হলেও তা কবে বিশ্ববাসীর কাছে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হবে। উল্লেখ্য, দিন চারেক আগেই করোনা নিয়ে নতুন করে সতর্কবার্তা দিয়েছিল এই সংস্থা। জানিয়েছিল, মারণ ব্যাধি থেকে এখনই নিস্তার নেই। এখনও অনেক অপেক্ষা করতে হবে। এ বিপদ এত সহজে কাটার নয়। COVID-19 -এর এখনও শক্তিক্ষয় হয়নি। 

এদিকে, আগের অবস্থান থেকে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে গিয়ে রাষ্ট্রসংঘের সংস্থাটি জানিয়ে দেয়, চিন নয়, করোনা নিয়ে তারাই প্রথম সতর্ক করেছিল বিশ্বকে। চিনে তাদের দপ্তর থেকেই এ খবর প্রথম জানানো হয়েছিল। করোনা সংক্রমণের জন্য চিনকেই বারবার কাঠগড়ায় তুলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প-সহ একাধিক দেশ। তোপের মুখে পড়েছে WHO-ও। মনে করা হচ্ছে, সেই কারণেই এবার চিনকে আড়াল করার ‘নীতি’ থেকে সরে দাঁড়াল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। 

[আরও পড়ুন: সংক্রমণের নিরিখে বিশ্বে রেকর্ড গড়ল আমেরিকা! একদিনে করোনায় আক্রান্ত ৫৫ হাজারের বেশি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement