Advertisement
Advertisement

ব্রেক্সিট বিপাকে নাজেহাল জনসন, আরজি বিবেচনা করার আশ্বাস দিল ইইউ

৩১ অক্টোবর ব্রেক্সিট কার্যকরী করার মেয়াদ ফুরিয়ে যাবে।

Will consider your offer: EU tells PM Boris Johnson
Published by: Monishankar Choudhury
  • Posted:October 21, 2019 10:04 am
  • Updated:October 21, 2019 10:05 am

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়া বা ব্রেক্সিট কার্যকরী করার প্রতিশ্রুতি দিয়েই ক্ষমতায় এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তবে জট খুলতে কে কালঘাম ছুটে যাবে তা বুঝতে পারেননি তিনি। ব্রিটিশ পার্লামেন্টে জোর ধাক্কা খেয়ে, ইউরোপীয় ইউনিয়নের কাছে তা পিছিয়ে দেওয়ার আরজি জানিয়েছিলেন জনসন। এবার তাঁর আরজি মেনে ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া বিলম্বের বিষয়টি বিবেচনা করার কথা জানাল ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

আগামী ৩১ অক্টোবর ব্রেক্সিট কার্যকরী করার মেয়াদ ফুরিয়ে যাবে। হতে সময় নেই বললেই চলে। এহেন পরিস্থিতিতে চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের পথেই হাঁটছিল ব্রিটেন। যে কোনওভাবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যেতে মরিয়া কনজারভেটিভ পার্টির প্রধান জনসন। তবে তাঁর সেই চেষ্টা ধাক্কা খায় গতকাল। ব্রিটিশ পার্লামেন্টে বিরোধীরা ব্রেক্সিট পিছিয়ে দেওয়ার প্রস্তাব রাখেন। সেই প্রস্তাবে সায় দেন ‘হাউস অব কমন্সের’ সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যরা। তাঁদের যুক্তি ছিল, ব্রেক্সিট চুক্তির সমস্ত দিক দেখেশুনে নিষ্পত্তির চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। অনিচ্ছা সত্ত্বেও ভোটাভুটিতে পাশ হওয়া বিরোধীদের প্রস্তাব মেনে নেতে হয় জনসনকে। সেই কারণে বেশ ক্ষুব্ধ হয়ে জনসন প্রথমে জানিয়েও দিয়েছিলেন, ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া বিলম্বের বিষয়ে তিনি আর ইইউ’র কাছে কোনওভাবেই অনুরোধ করবেন না। পরে কনজারভেটিভ পার্টির এই শীর্ষনেতা বেক্সিট নিষ্পত্তিতে আরও তিনমাস সময়সীমা বাড়াতে চেয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন কাউন্সিল প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্ককে চিঠি লেখেন।

Advertisement

বরিস জনসনের চিঠির প্রেক্ষিতে তাঁর আর্জি বিবেচনা করার আশ্বাস দিয়েছেন ইইউ নেতারা। টাস্ক বলেছেন, “কাউন্সিলে সবার সঙ্গে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এখনই এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করা সম্ভব নয়।’ এদিকে, ব্রেক্সিট বিরোধী আন্দোলনও চলছে ব্রিটেনে। প্ল্যাকার্ড হাতে গতকাল কয়েক হাজার মানুষ পার্লামেন্টের সামনে হাজির হয়ে বিক্ষোভ দেখান। তাঁরা ব্রেক্সিটের পুরো প্রক্রিয়া বাতিল করে নতুন করে গণভোটের দাবিও তোলেন। সব মিলিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটিশ প্রস্থান যে কোনও মতেই সহজ হবে না, তা ক্রমশ জটিল হয়ে উঠা পরিস্থিতি আরও স্পষ্ট করে বুঝিয়ে দিচ্ছে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: জুতো পায়ে ভুটানের বৌদ্ধস্তূপের ছাদে উঠে ফটোশুট, গ্রেপ্তার ভারতীয় পর্যটক]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ