২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কয়েকদিন আগেই তুরস্কের সঙ্গে গোপনে বোঝাপড়া করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ তারপরই সিরিয়ায় মিত্র কুর্দ বাহিনীকে একা ফেলে পিছু হঠে যায় মার্কিন সেনা৷ ফলে আশঙ্কা সত্যি করে কুর্দদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে তুর্কি সেনা৷ তবে ঘরে-বাইরে চাপের মুখে পড়ে কুর্দদের ক্ষতে প্রলেপ দিতে এবার আঙ্কারার বিরুদ্ধে বেশ কিছু প্রশাসনিক পদক্ষেপ নিল ট্রাম্প প্রশাসন।

হোয়াইট হাউস সূত্রে খবর, তুরস্কের একাধিক মন্ত্রী ও অধিকারিকদের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে৷ শুধু তাই নয়, স্টিল আমদানিতে শুল্ক বৃদ্ধি এবং ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বাণিজ্য চুক্তি বাতিলের সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে৷ ইতিমধ্যেই এই পদক্ষে কার্যকরী করতে প্রশাসনিক নির্দেশিকায় স্বাক্ষর করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ এদিকে, মার্কিন পদক্ষেপে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে আঙ্কারা৷ তুরস্কের বিদেশমন্ত্রী মেভলাট কাভুসগলু সাফ বলেছেন, ‘মার্কিন নিষেধাজ্ঞার পালটা জবাব দেওয়া হবে৷ যে কোনও মূল্যেই সিরিয়ায় ‘ফ্রি জোন’ বা সিরীয় শরণার্থীদের ফেরত পাঠাতে ‘মুক্তাঞ্চল’ গড়ে তুলতে বদ্ধপরিকর তুরস্ক৷’

মার্কিন মদতপুষ্ট কুর্দিশ বাহিনী ‘সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস’-এর (এসডিএফ) উপর হামলা চালাচ্ছে তুরস্কের সেনা। কয়েকদিন আগেই, তুরস্ক সীমান্তের কাছে উত্তরপূর্ব সিরিয়া থেকে মার্কিন ফৌজ প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করেছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তারপর থেকেই বাড়ছিল তুরস্কের হামলার আশঙ্কা। উল্লেখ্য, সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমেরিকাকে মদত দিচ্ছে এসডিএফ। রুশ সমর্থিত প্রেসিডেন্ট আসাদের সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে এই মিলিশিয়া। এদিকে এরদোগানের অভিযোগ, তুরস্কে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মদত দিচ্ছে এসডিএফ। ‘কুর্দিস্তান’ গঠনে কুর্দ জঙ্গিদের হাতিয়ার দিচ্ছে এসডিএফ।

এদিকে, কুর্দদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে তুরস্কের বিরুদ্ধে যুদ্ধে নেমে পড়েছে সিরিয়ার সরকারি সেনাবাহিনী। তুরস্কের বাহিনীর লাগাতার বোমাবর্ষণের মুখে কার্যত দিশাহারা হয়ে পড়েছিল কুর্দরা। গত এক দশক ধরে ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে লড়াই করে প্রচুর সৈন্য ক্ষয় হয়েছে কুর্দদের। এবার কুর্দদের বিরুদ্ধে বড় বিপদ হয়ে দেখা দিয়েছেন তুরস্কের কট্টর ইসলামপন্থী প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোগান। তিনি কুর্দদের কবজায় থাকা সিরিয়ার বিশাল এলাকা দখল করতে পালটা সেনা অভিযানের নির্দেশ দিয়েছেন। রাশিয়ার সমর্থনপুষ্ট সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার-আল-আসাদ ২০১২ সালের পর এই অঞ্চলে সেনা পাঠিয়েছেন। অন্যদিকে তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান অধিকৃত অঞ্চলগুলিকে সন্ত্রাসমুক্ত করে তা জমির মালিকের কাছে হস্তান্তরের দাবি করেছেন। মানবিজ শহর কুর্দমুক্ত করার ঘোষণা করেন তিনি। যদিও সেই দাবি উড়িয়ে দিয়েছে সিরিয়া ও কুর্দরা।

[আরও পড়ুন: ক্ষুধা মোকাবিলায় বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের থেকেও পিছিয়ে ভারত]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং