BREAKING NEWS

২৮ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের মন পেতে H-1B ভিসা নিয়ে বড় ঘোষণা জো বিডেনের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: July 2, 2020 3:42 pm|    Updated: July 2, 2020 3:42 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্টের পদে বসলে H-1B ভিসার উপর জারি স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করার প্রতিশ্রুতি দিলেন ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বিডেন (Joe Biden)। ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিনিদের মন পেতেই এই ঘোষণা করছেন বিডেন বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

[আরও পড়ুন: পাকিস্তানে তৈরি হবে না হিন্দু মন্দির, ইসলামিক সংগঠনের ফতোয়ায় থমকে কাজ]

গত এপ্রিল মাসে ৯০ দিনের জন্য গ্রিন কার্ড স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তারপর জুন মাসের ২৩ তারিখ থেকে চলতি বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত H-1B Visa এবং এইচ ৪, এল ১ এবং জে ১-এর মতো কাজের ভিসা দেওয়া হবে না বলে সিদ্ধান্ত নেন তিনি। এর ফলে, অন্তত হাজার খানেক ভারতীয় বিপাকে পড়েছেন। তাঁরা বহু বছর ধরেই আইনসঙ্গতভাবে আমেরিকায় কাজ করছিলেন। নানা কারণে ভারতে এসে আটকে পড়েছিলেন। চলতি বছরে তাঁরা আর আমেরিকায় ফিরতে পারবেন কিনা, তা নিয়েই সংশয়ে। হোয়াইট হাউসের দাবি, করোনা মহামারীর জেরে বহু আমেরিকান কাজ হারিয়েছেন। এই সিদ্ধান্তে তাঁদের অনেকের সুবিধা হবে। ৫ লক্ষ ২৫ হাজার কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে।

Asian American and Pacific Islander (AAPI)-এর একটি বৈঠকে বিডেন বলেন, “ট্রাম্প প্রশাসন চলতি বছরের শেষ পর্যন্ত H-1B Visa’র উপর জারি স্থগিতাদেশ জারি করেছে। আমরা এমনটা করব না। বিভিন্ন সংস্থায় এই ভিসা নিয়ে কর্মরত মানুষরা এই দেশকে তৈরি করেছে। তাই প্রেসিডেন্ট পদে বসলে ১০০ দিনের মধ্যেই ভিসা সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান করব আমি।”

প্রসঙ্গত, এইচ-১বি ভিসা নিয়ে আমেরিকায় কাজ করতে যাওয়া বিদেশি কর্মীদের মধ্যে ভারতীয় ও চিনের বাসিন্দাই সবচেয়ে বেশি। ফলে এই বিধিনিষেধে সমস্যায় পড়েছেন বহু ভারতীয় তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী। পাশাপাশি, ফাইনান্স এবং হসপিটালিটি ইন্ডাস্ট্রিতেও যুক্ত ভারতীয়রা সমস্যায় পড়েছেন। বিশ্লেষকদের মতে, ট্রাম্প প্রশাসনের বিরুদ্ধে সেই ক্ষোভকে কাজে লাগিয়ে আসন্ন প্রেসিডেনশিয়াল নির্বাচনে ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিনিদের মন পেতে চাইছেন ডেমোক্রেট দলের প্রার্থী বিডেন।

[আরও পড়ুন: চুক্তি লঙ্ঘন করেছে চিন, হংকংয়ের ৩০ লক্ষ বাসিন্দাকে নাগরিকত্ব দেবে ব্রিটেন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement