BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

এখন থেকেই পরবর্তী মহামারীর জন্য প্রস্তুত হতে হবে, গোটা বিশ্বকে সতর্ক করল WHO

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: September 9, 2020 1:27 pm|    Updated: September 9, 2020 1:27 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার করাল গ্রাস থেকে এখনও মুক্তি পায়নি পৃথিবী। এর থাবায় বিপর্যস্ত বিশ্বের বহু দেশের মানুষের জীবনজযাত্রা। বিশ্বের একটা বড় অংশের মানুষের আর্থসামাজিক অবস্থা একপ্রকার পুরোপুরি বদলে দিয়েছে এই মহামারী। এরই মধ্যে নতুন সতর্কতা নিয়ে হাজির বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তাঁরা বলছে, বিশ্ববাসীকে এখনই পরবর্তী মহামারীর জন্য প্রস্তুত হতে হবে। যাতে পরবর্তী মহামারী এলে আমরা আরও ভালভাবে তার মোকাবিলা করতে পারি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ডিরেক্টর-জেনারেল টেড্রোস আধানম ঘেব্রিয়েসুস (Tedros Adhanom Ghebreyesus) বলছেন, “এটাই শেষ মহামারী নয়। ইতিহাস আমাদের শিক্ষা দিয়েছে বারবার মহামারীর আগমন খুবই স্বাভাবিক ঘটনা। তাই আমাদের এখন থেকে প্রস্তুতি নিতে হবে। যাতে এরপর যখন মহামারী আসবে, তখন আমরা এর চেয়ে বেশি প্রস্তুত থাকতে পারি।” বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ডিরেক্টর-জেনারেল এখন থেকেই দেশগুলিকে জনস্বাস্থ্যে জোর দিতে অনুরোধ করেছেন। তিনি বলছেন,”জনস্বাস্থ্য সামাজিক, অর্থনৈতিক এবং রাজনৈতিক সুস্থিরতার ভিত্তি। তাই জনস্বাস্থ্যে খরচ করার অর্থ হল আরও সুস্থ এবং সমৃদ্ধ ভবিষ্যতের ভিত তৈরি করা।” WHO প্রধান বিশ্বের সব দেশের কাছে অনুরোধ করেছেন, দয়া করে স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় আরও বেশি বেশি করে বিনিয়োগ করুন। বিশেষ করে প্রাথমিক স্বাস্থ্যে। যাতে আমরা নতুন কোনও রোগ সহজেই শনাক্ত করতে পারি। এবং তা প্রতিরোধ করতে পারি।”

[আরও পড়ুন: টিকা নেওয়ার পরই অসুস্থ স্বেচ্ছাসেবক! স্থগিত অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিনের চূড়ান্ত ট্রায়াল]

আসলে করোনা মোকাবিলায় বহু দেশের প্রস্তুতি নিয়ে একাধিক প্রশ্ন উঠেছে। প্রশ্ন উঠেছে WHO’র ভূমিকা নিয়েও। তাই পরবর্তী ক্ষেত্রে যাতে তেমনটা না হয়, তা নিশ্চিত করতে চাইছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। উল্লেখ্য, করোনার আগে সোয়াইন ফ্লু, জিকা ভাইরাস, পোলিও সংক্রমণ এবং দু’বার ইবোলা সংক্রমণের সময়ে বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্যক্ষেত্রে জরুরি অবস্থা জারি করেছিল WHO। কিন্তু কোনওক্ষেত্রেই পরিস্থিতি এতটা ভয়াবহ হয়নি। এবছর করোনার হানা এই সব মহামারীর মিলিত ক্ষতিকেও ছাপিয়ে যেতে পারে, এই আশঙ্কায় প্রহর গুণছে বিশ্ববাসী। এর মধ্যে আবার WHO বলছে আগামী মহামারী হবে আরও ভয়ংকর।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement