৪ আশ্বিন  ১৪২৬  রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: শহরের এক অভিজাত হোটেলে বউভাতের আয়োজন হয়েছিল পুরোদমে৷ ফুলশয্যার ব্যবস্থাও ছিল চোখ ধাঁধানো৷ হাজির ছিলেন নববধূ৷ কিন্তু ছিলেন না বর৷ কেন? কারণ, ওই ‘গুণধর’ নাকি ধর্ষণ করেছে এক তরুণীকে৷ আর সেই অভিযোগে হাজতে হয়েছে তার ঠিকানা৷ জেলে বসেই বউভাতের ভাত খেলেন এবং ফুলশয্যার রাত কাটালেন ধর্ষণে অভিযুক্ত শিঞ্জন রায়৷

[ আরও পড়ুন: ফের অগ্নিগ্রাসে ঢাকা, পুড়ে ছাই অন্তত ৩ হাজার ঘর ]

জানা গিয়েছে, খুলনার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী আয়কর অফিসারের ছেলে শিঞ্জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন৷ এই মর্মে বৃহস্পতিবার সোনাডাঙা থানায় অভিযোগও দায়ের করেছেন তিনি। পুলিশকে জানিয়েছেন, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাঁকে আলাদা এক বাড়িতে রেখেছিল শিঞ্জন রায়। সেখানেই একাধিকবার তাঁর সঙ্গে সঙ্গমে লিপ্ত হয় সে৷ বর্তমানে ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা তিনি। কিন্তু এখন সম্পর্ক মানতে চাইছে না শিঞ্জন৷ বাচ্চাকেও অস্বীকার করছে সে৷ বুধবার রাতেই বিয়ে হয় শিঞ্জন রায়ের। আর ওই ছাত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার তাকে গ্রেপ্তার করে খুলনা থানার পুলিশ৷ শুক্রবার বিকালে আদালতের তোলা হয় অভিযুক্তকে৷ তাকে জেল হেফাজতে পাঠায় আদালত। ফলে শুক্রবার জেলেই বউভাতের ভাত খেতে হয়েছে আয়কর অফিসারের ছেলেকে৷ ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে অভিযোগকারিনীকে৷

[ আরও পড়ুন: অবশেষে দেশে ফিরবেন রোহিঙ্গারা, খুশির হওয়া বাংলাদেশে ]

পুলিশ সূত্রের খবর, অভিযুক্ত শিঞ্জন রায় এবং অভিযোগকারী ওই মেয়েটি একই বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করতেন। দু’বছর আগে শিঞ্জনের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। তাঁদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। একাধিকবার যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হন তারা৷ এবং ছ’মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন অভিযোগকারিনী। বিষয়টি জানতে পারেন শিঞ্জনের পরিবারের সদস্যরা। সেই কারণে তড়িঘড়ি ছেলের বিয়ের আয়োজন করেন তাঁরা। সেই খবর পেয়েই পুলিশের দ্বারস্থ হন তরুণী। খুলনার মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এহসান শাহ বলেন, অভিযোগকারিনী সোনাডাঙ্গা থানায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেছেন। সোনাডাঙা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জানান, অভিযুক্ত শিঞ্জন রায়কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য খুলনার মহানগর হাকিম আদালতে পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। তবে শুনানির দিন ধার্য হয়নি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং