BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বাংলাদেশে করোনার বলি প্রখ্যাত সাংবাদিক, মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ১৬৩

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: April 29, 2020 9:01 pm|    Updated: April 29, 2020 9:01 pm

An Images

সুকুমার সরকার, ঢাকা: বাংলাদেশে নোভেল করোনা ভাইরাসে আরও ৮ জনের প্রাণ গেল। এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৬৩ ও আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ হাজার ১০৩ জন। এবারে মৃত্যুর তালিকায় যোগ হলেন ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক সময়ের আলো’র সম্পাদক হুমায়ুন কবীর খোকন (৫০)। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে ঢাকার অদূরে বিমানবন্দর সংলগ্ন উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতালের আইসিইউতে তিনি মারা যান। তিনি ঢাকায় কুমিল্লা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি এবং ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সিনিয়র সদস্য।

তাঁর দীর্ঘদিনের সহকর্মী ও শাসকদল সমর্থিত সাংবাদিক ফোরাম বাংলাদেশ ফেডারেল ইউনিয়নের- বিএফইউজের মহাসচিব শাবান মাহমুদ বলেন, ৩ দিন ধরে জ্বর, কাশি ও গলা ব্যথার উপসর্গ নিয়ে তিনি ঢাকার মহাখালীর বাড়িতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। মঙ্গলবার বিকেলে তাঁর অবস্থার অবনতি হলে রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গে যোগাযোগ করে দ্রুত আইসিইউর ব্যবস্থা করা হয়। বাড়ি থেকে অ্যাম্বুল্যান্সে করে তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে নেওয়া হয়। রাত ১০টার দিকে চিকিৎসকদের সকল চেষ্টা ব্যর্থ করে তিনি চলে যান। উত্তরা রিজেন্ট হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তাঁর শরীরে করোনার উপসর্গ ছিল।

[আরও পড়ুন: বাংলাদেশে নিকেশ রোহিঙ্গা মাদক পাচারকারী, উদ্ধার ৩০ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট  ]

দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকায় তিনি ছিলেন সিনিয়র রিপোর্টার। সেখান থেকে তিনি পদোন্নতি হয়ে বিশেষ প্রতিনিধি এবং পরে ওই পত্রিকার উপ-সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। গত বছর তিনি নতুন পত্রিকা সময়ের আলো’তে প্রধান প্রতিবেদক হিসাবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে তিনি ওই পত্রিকার নগর সম্পাদক হিসাবে পদোন্নতি পান। হুমায়ুন কবীর খোকনের মৃত্যুতে নিরপেক্ষ ফোরাম ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সভাপতি রফিকুল ইসলাম আজাদ ও সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ চৌধুরি গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। ডিআরইউ কার্যনির্বাহী কমিটির এক বিবৃতিতে মৃতের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে তাঁর পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মহামারি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) ৮ জনের মৃত্যু-সহ নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪১ জন। আক্রান্ত হয়ে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সাত হাজার ১০৩ জন। বুধবার রাজধানী ঢাকার মহাখালীতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে দেশে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানান অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। বুলেটিনে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪ হাজার ৯৬৮টি করোনা ভাইরাস নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। সব মিলিয়ে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৯ হাজার ৭০১টি। দেশে প্রথম কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হন ৮ মার্চ এবং এ রোগে আক্রান্ত প্রথম রোগীর মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement